Euro 2024 qualifier: ইউক্রেনকে ২-১ গোলে হারিয়ে লড়াইয়ে ইতালি, স্পেন জিতল ৬-০ গোলে, রোমানিয়া ম্যাচে ঝামেলা

Advertisement

ইউক্রেনের বিরুদ্ধে ২-১ গোলে জিতে উয়েফা ইউরোর যোগ্যতা অর্জনের ম্যাচে সমতায় ফিরল ইতালি। টানা দুই বিশ্বকাপ খেলতে না পারা ইউরো চ্যাম্পিয়ন ইতালি খানিকটা চাপেই ছিল। আগামী বছরের ইউরোতে খেলা নিয়ে তৈরি হয়েছিল অনিশ্চয়তা। বিশেষ করে ৩ ম্যাচ শেষে ইতালির পয়েন্ট ছিল মাত্র ৪। গোল ব্যবধানেও পিছিয়ে ছিল তারা। আর দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইউক্রেনের পয়েন্ট ৪ ম্যাচে ছিল ৭। যে কারণে এদিনের ইউক্রেনের বিরুদ্ধে ম্যাচটি ছিল ইতালির কাছে মহাগুরুত্বপূর্ণ হয়ে গিয়েছিল। আর গুরুত্বপূর্ণ সেই লড়াইয়ে ২-১ গোলের দারুণ এক জয়ই পেল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আজ্জুরিরা। এই জয়ের ফলে ইউরো কাপের যোগ্যতা অর্জনে নতুন করে অক্সিজেন পল তারা।

এদিনের ম্যাচের ফল বলছে ইতালি এবার লড়াই করার নতুন রসদ পেল। এই ম্যাচে ২-১ গোলে জিতেছে তারা। কিন্তু পরিসংখ্যান আরেকটু গভীরভাবে তলিয়ে দেখলে স্পষ্ট হবে পুরো চিত্র। লুসিয়ানো স্পালেত্তির ইতালি দাপট দেখিয়েছে ম্যাচের বেশিরভাগ সময়। যেখানে ৬৪ শতাংশ বলের দখল রেখে তারা শট নিয়েছে ২১টি। যদিও ৫টির বেশি বল লক্ষ্যে রাখতে পারেনি তারা। তাতে অবশ্য কোনও সমস্যা হচ্ছে না। ঠিকই ২-১ গোলের দারুণ এক জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ইতালির হয়ে জোড়া গোল করেছেন ডাভিড ফ্রাত্তেসি। আর এ জয়ে এক ম্যাচ কম খেলে ইউক্রেনের সমান ৭ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দুইয়ে উঠে এসেছে ইতালি। যার ফলে এখন দারুণভাবেই সরাসরি ইউরোতে খেলার লড়াইয়ে ফিরল আজ্জুরিরা।

এদিন উয়েফা ইউরোর বাছাই পর্বের অন্য আরেকটি ম্যাচে সাইপ্রাসকে নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলা করল স্পেন। এই ম্যাচে সাইপ্রাসকে ৬-০ গোলে হারাল স্পেন। সাম্প্রতিক সময়ে লামিনে ইয়ামাল মাঠে নামলেই যেন নতুন রেকর্ড তৈরি হচ্ছে। এবার স্পেনের সর্বকণিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেব একাদশে থাকার রেকর্ড গড়লেন ১৬ বছর বয়সি এই কিশোর। সাইপ্রাসের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেই দেখালেন নিজের ম্যাজিক। যদিও এদিন গোল করতে পাননি তিনি। সাইপ্রাসকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে দিল স্পেন। এই ম্যাচে জোড়া গোল করেছেন ফেরান তোরেস। আর একটি করে গোল করেছেন জাভি, মিকেল মিরেনো, হোসেলো এবং অ্যালেক্স বায়েনা।

এদিনের ম্যাচে গ্রানাদায় স্পেনের সামনে পাত্তা পাইনি সাইপ্রাস। ম্যাচের শুরু থেকেই প্রতিপক্ষকে রীতিমতো কোণঠাসা করে রেখেছিল স্পেন। স্প্যানিয়ার্ডরা ছোট ছোট পাসে নিজেদের আক্রমণ তৈরি করছিল। স্প্যানিয়ার্ডদের ফুটবলের কোনও জবাবই ছিল না সাইপ্রাসদের কাছে। এদিনের ম্যাচে অসহায় আত্মসমর্পণে হজম করেছে একের পর এক গোল। প্রথমার্ধে স্পেনকে ‍২ গোলে আটকে রাখতে পারলেও, দ্বিতীয়ার্ধে একে একে চার গোল হজম করে সাইপ্রাস। এই জয়ের ফলে গ্রুপ ‘এ’তে ৪ ম্যাচে ৩ জয়ে ৯ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকল স্পেন। ৫ ম্যাচে ৫ জয়ে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে স্কটল্যান্ড আছে শীর্ষে।

রোমানিয়া বনাম কসোভোর ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত সমাপ্ত করতে সক্ষম হয়েছিল উদ্যোক্তারা। এই ম্যাচটি পরিত্যক্ত হওয়ার সামনে ছিল। বুখারেস্টে হোম ভক্তদের দ্বারা রাজনৈতিক সার্বিয়াপন্থী স্লোগান প্রথমার্ধে ৪৫ মিনিট বিলম্ব করতে বাধ্য করেছিল। এবং সেই সময়ে খেলোয়াড়দের তাদের লকার রুমে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। পরে খেলাটি শুরু করা হয়। এবং এই ম্যাচে রোমানিয়া ২-০ গোলে ম্যাচটি জিততে সক্ষম হয়।

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।