Woman paraded naked in Rajasthan: যুবতীকে বিবস্ত্র করে ঘোরানো হল রাজস্থানে, ভিডিয়ো ভাইরাল হতেই গ্রেফতার স্বামী

Advertisement

কয়েকদিন আগেই মণিপুরে তিন মহিলাকে বিবস্ত্র করে ঘোরানো এবং ধর্ষণের অভিযোগ ঘিরে তোলপাড় হয়েছিল গোটা দেশ। ঘটনার ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। পরে সেই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সরানোর নির্দেশ দিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। এবার সেই একই ধরনের একটি ঘটনা ঘটল রাজস্থানে। অভিযোগ, রাজস্থানে ২১ বছর বয়সি এক আদিবাসী যুবতীকে বিবস্ত্র করে ঘোরানো হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে প্রতাপগড় জেলায়। এই মামলায় অভিযুক্ত যুবতীর স্বামী এবং শ্বশুড় বাড়ির লোকজন। ঘটনার ভিডিয়ো ভাইরাল হতেই স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদিকে এই ঘটনা প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটও।

আদিবাসী যুবতীকে নগ্ন করে ঘোরনোর ঘটনার ভিডিয়ো ভাইরাল হতেই অশোক গেহলট এডিজি (অপরাধ দমন শাখা)-কে কড়া পদক্ষেপ করতে নির্দেশ দেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমি পুলিশকে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করতে বলেছি। কড়া হয়ে পদক্ষেপের নির্দেশ দিয়েছি।’ এদিকে বিজেপি এই ইস্যুতে রাজস্থান সরকারকে তোপ দেগেছে। গেরুয়া শিবিরের সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে পোস্ট করে লেখা হয়েছে, ‘রাজস্থান আবারও লজ্জিত হল’। এদিকে পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, তদন্তকারীদের মোট ৬টি দল গঠন করা হয়েছে অভিযুক্তদের সবাইকে গ্রেফতার করার জন্য।

প্রতাপগড়ের পুলিশ সুপার অমিত কুমার জানিয়েছেন, নির্যাতিতা যুবতীর স্বামী সহ মোট তিনজনকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে এই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে। পুলিশের তরফে জানানো হয়, অভিযুক্ত স্বামী পুলিশকে দেখেই পালানোর চেষ্টা করে এবং সেই সময় চোট পায় সে এবং বাকিরা। এই আবহে আপাতত অভিযুক্তদের হাসপাতালে ভরতি রাখা হয়েছে। সেখানে চিকিৎসা চলছে তাদের। ধারিয়াওয়াদের এসএইচও পেশোয়ার খান বলেছেন, প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে যে সেই নির্যাতিতা যুবতীর অন্য একজনের সাথে সম্পর্ক ছিল। এই আবহে তাকে বিবস্ত্র করে ঘোরানোর ঘটনাটি ঘটে গত বৃহস্পতিবার। এদিকে এই ঘটনা প্রসঙ্গে ডিজিপি উমেশ মিশ্র জানান, সেই যুবতী অন্য় এক পুরুষের সঙ্গে থাকছিল অন্য এক গ্রামে। এই আবহে প্রতাপগড়ের সেই গ্রামে গিয়ে সেই যুবতীকে অপহরণ করে তার স্বামী এবং শ্বশুড় বাড়ির লোকজন। এরপর যুবতীকে বিবস্ত্র করে ঘোরানো হয়।

এদিকে ঘটনার যে ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে, তাতে দেখা গিয়েছে, একজন পুরুষ জোর করে ক্যামেরার সামনে এক যুবতীকে বিবস্ত্র করছে। সেখানে আরও বেশ কয়েকজন উপস্থিত ছিল। এরপর সেই যুবতীকে সেই অবস্থাতেই গ্রামে ঘোরানো হয়। এই আবহে অশোক গেহলট সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখেন, ‘প্রতাপগড় জেলায় একটি ভয়াবহ ঘটনা ঘটেছে যার ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে এক যুবতীকে বিবস্ত্র করে ঘোরানো হয়েছে পারিবারিক বিবাদের জেরে। এই ধরনের অপরাধের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের এই সমাজে কোনও স্থান নেই। অপরাধীদের যত দ্রুত সম্ভব জেলে ভরা হবে।’

 

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।