HS Exam 2023: মোবাইল থাকলেই ধরবে ‘ফ্রিকোয়েন্সি’, জয়েন্টের ধাঁচে কড়া ‘ডোজ’ উচ্চমাধ্যমিকেও

Advertisement

রাজ্য জয়েন্ট পরীক্ষায় আগে থেকেই ব্যবহৃত হয়। পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইলের ব্যবহার রুখতে এবার উচ্চমাধ্যমিকেও ‘পাইলট’ প্রজেক্ট হিসেবে সেই ‘রেডিয়ো ফ্রিকোয়েন্সি ডিটেক্টর’ ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। তবে সব কেন্দ্রে ওই ‘রেডিয়ো ফ্রিকোয়েন্সি ডিটেক্টর’ (আরএফডি) ব্যবহার করা হচ্ছে না। আপাতত অতি স্পর্শকাতর কেন্দ্র সেই প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। 

শুক্রবার সংসদ সভাপতি চিরঞ্জীব ভট্টাচার্য বলেন, ‘অতি স্পর্শকাতর পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রথমবার রেডিয়ো ফ্রিকোয়েন্সি ডিটেক্টর (আরএফডি) ব্যবহার করা হচ্ছে। সব স্পর্শকাতর কেন্দ্রেই আপাতত (ওই প্রযুক্তি) ব্যবহার করা হচ্ছে না। পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে একাধিক জেলার অতি স্পর্শকাতর পরীক্ষাকেন্দ্রে রেডিয়ো ফ্রিকোয়েন্সি ডিটেক্টর ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংসদ। ইতিমধ্যে পশ্চিমবঙ্গ জয়েন্ট এন্ট্রাস বোর্ড আরএফডি ব্যবহার করে।’

  • সংসদ সভাপতি: এবার উচ্চমাধ্যমিকে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৮,৫৫,০০০। যা গতবার ছিল ৭,৪৫,০০০। এবার ছাত্রের তুলনায় ছাত্রীদের সংখ্যা ১ লাখ ২৭ হাজার বেশি। রাজ্যের সব জেলায় ছাত্রীর সংখ্যা বেশি। উচ্চমাধ্যমিকের মোট পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৪২.৫৭ শতাংশ ছাত্র (গতবার ছিল ৪৫.২১ শতাংশ)। শতাংশের বিচারে ছাত্রীদের সংখ্যা ৫৭.৪৩ শতাংশ (গতবারের উচ্চমাধ্যমিকে ছিল ৫৪.৭৯ শতাংশ)। 
  • সংসদ সভাপতি: ২০২৩ সালের উচ্চমাধ্যমিকে মোট মেন ভেন্যু বা সেন্টারের সংখ্যা ৮৩৫। মোট পরীক্ষাকেন্দ্রের সংখ্যা ২,৩৪৯। এবার রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় মোট ২০৬ টি ভেন্যুকে স্পর্শকাতর বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসনের তথ্যের ভিত্তিতে স্পর্শকাতর কেন্দ্রের সংখ্যা নির্ধারণ করেছে সংসদ। মালদায় স্পর্শকাতর কেন্দ্রের সংখ্যা সবথেকে বেশি।
  • প্রতিটি স্পর্শকাতর পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে ‘মেটাল ডিটেক্টর’ থাকবে। পরীক্ষার্থীদের কাছে মোবাইল ফোন বা অন্য কোনও ইলেকট্রনিকস গ্যাজেট আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হবে। এবার প্রথম সব স্পর্শকাতর কেন্দ্রে ‘মেটাল ডিটেক্টর’ ব্যবহার করা হচ্ছে। 

আরও পড়ুন: HS 2023 Result Date: কবে উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফল প্রকাশিত হবে? পরীক্ষা শুরুর আগেই জানাল সংসদ

  • সংসদ সভাপতি: একাদশ শ্রেণির এবং দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষার জন্য মোট ১২০ ট বিষয়ের উপর প্রশ্নপত্র তৈরি করা হচ্ছে। একাদশ শ্রেণিতে মোট বিষয়ের সংখ্যা ৬০। উচ্চমাধ্যমিকেও সমসংখ্যক বিষয়ের উপর প্রশ্ন করা হচ্ছে।
  • সংসদ সভাপতি: অন্যান্য বছরের মতো এবারও চারটি ভাষায় প্রশ্ন করা হয়েছে – বাংলা, অলচিকি, ইংরেজি এবং হিন্দি।
  • সংসদ সভাপতি: এবার পরীক্ষামূলকভাবে উচ্চমাধ্যমিকে ‘রেডিয়ো ফ্রিকোয়েন্সি ডিটেক্টর’ ব্যবহার করা হচ্ছে। তাতে সাফল্য পেলে ভবিষ্যতেও একইরকম পন্থা নেওয়া হবে।

(এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup)

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।