Usti Shootout: ব্যবসায়ীকে লক্ষ্য করে চলল গুলি–বোমা, উস্তিতে শুটআউটের ঘটনায় তীব্র আতঙ্ক

Advertisement

আবার উস্তিতে শ্যুটআউটের ঘটনা ঘটল। রবিবার বেশি রাতে উস্তির হটুগঞ্জে এক ব্যবসায়ীকে লক্ষ্য করে গুলি–বোমা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ। কয়েকজন দুষ্কৃতী ওই ব্যবসায়ীকে লক্ষ্য করে গুলি–বোমা ছোড়ে বলে অভিযোগ। আর এই গুলি–বোমার শব্দে রাতেই তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়। এদিন গুলি লাগে ব্যবসায়ীর শরীরে। তখন গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ওই ব্যবসায়ীকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত শুরু করেছে।

ঠিক কী ঘটেছে উস্তিতে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, ওই ব্যবসায়ী রাতে দোকান বন্ধ করার সময় তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি–বোমা ছোড়ে দুষ্কৃতীরা। গুলি–বোমার শব্দে আতঙ্কে হুড়োহুড়ি শুরু করে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তাতে একজন গ্রেফতার হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। কয়েক মাস ধরে এলাকায় দুষ্কৃতীদের দৌরাত্ম্য বেড়ে গিয়েছে। ব্যবসায়ীকে লক্ষ্য করে গুলি, বোমাবাজি চলায় সবাই নিজের নিজের বাড়ির দিকে ছুটতে থাকে। ভয়ে কাঁটা হয়ে রয়েছেন উস্তির মানুষজন।

পুলিশ কী তথ্য পেয়েছে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, গুলিবিদ্ধ ওই ব্যবসায়ীর নাম নিখিলকুমার সাহা। তাঁর বাড়ি ডায়মন্ড হারবার এলাকায়। পেশায় ব্যবসায়ী নিখিলবাবুর দোকান উস্তির হটুগঞ্জে। রবিবার রাতে যখন দোকান বন্ধ করে বাড়ি ফিরছিলেন নিখিলবাবু তখনই হামলার মুখে পড়েন। হটুগঞ্জে ওই ব্যবসায়ীর পথ আটকায় কয়েকজন দুষ্কৃতী। টাকা চায় তারা। সেই টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় নিখিলবাবুকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। আর পালানোর সময় বোমা ছোড়ে দুষ্কৃতীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে একজনকে। ধৃতের নাম রেজাউল নস্কর। গোটা ঘটনা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ সূত্রের খবর, এই দুষ্কৃতীরা আগে থেকে রেইকি করেছিল। কিন্তু গুলি সঠিক লক্ষ্যে না লাগায় বেঁচে গিয়েছেন ব্যবসায়ী নিখিলকুমার সাহা। তিনি কখন দোকানে আসেন এবং বাড়ি যান গোটা বিষয়টি লক্ষ্য করা হয়েছিল। তাই লুটপাট চালাতেই রাতের অন্ধকারকে বেছে নেওয়া হয়। তারপরই রবিবার মোটামুটি ফাঁকা দেখে হামলা চালানো হয়। তবে নগদ টাকা–কড়ি জোর করে নিতে পেরেছে কিনা দুষ্কৃতীরা সেটা জানা যায়নি। গুলি লাগার সঙ্গে সঙ্গে চিৎকার করে ওঠেন ব্যবসায়ী। তখন বোমা মেরে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা। উল্লেখ্য, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় কয়েকদিন তৃণমূল কংগ্রেস নেতাকে গুলি করে খুন করে দু্ষ্কৃতীরা। সেদিন সন্ধ্যায় এলাকার একটি চায়ের দোকানে বসেছিলেন তিনি। সঙ্গে ছিলেন ভাইপো–সহ কয়েকজন। হঠাৎ মোটরবাইকে করে এসে ওই তৃণমূল কংগ্রেস নেতাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় তিন দুষ্কৃতী।

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।