রচনা কি এবারও হারল শুভশ্রী-মৌনি-শ্রাবন্তীর কাছে? Non Fiction-এ কার টিআরপি বেশি

Advertisement

আগে বিজ্ঞাপন বা চ্যানেলের কর্মকর্তারাই হয়তো টিআরপি তালিকায় নজর রাখতেন বেশি। যদিও বর্তমানে তারকা থেকে দর্শক সকলেরই চোখ থাকে এই সাপ্তাহিক ফলাফলে। পছন্দের ধারাবাহিক বা শো এগিয়ে গেল না পিছিয়ে তা জানতে চলে অধীরে অপেক্ষা। সঙ্গে তর্কাতর্কিও। 

ফিকশনের ক্ষেত্রে বহু সপ্তাহ ধরে বেঙ্গল টপার স্টার জলসার অনুরাগের ছোঁয়া ধারাবাহিক। যদিও সব মিলিয়ে ধরতে গেলে জি-এর বেশি ধারাবাহিক এগিয়ে রয়েছে স্টার জলসার থেকে। নন ফিকশনেও এই একই হাল। কিছুতেই যেন জি বাংলাক টক্কর দিয়ে উঠতে পারছে না স্টার জলসা। টক্কর চলছে জি বাংলার দুটো শো-র মধ্যে তা হল দিদি নম্বর ১ আর ডান্স বাংলা ডান্স।  আরও পড়ুন: হার্ট অ্যাটাক হল সুস্মিতা সেনের, করাতে হল অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি

চলতি সপ্তাহে ৫.২  পেয়ে টিআরপি তালিকায় টপে রয়েছে দিদি নম্বর ওয়ান। গত সপ্তাহে ডান্স বাংলা ডান্সের গ্র্যান্ড প্রিমিয়ারের কারণে টিআরপি-তে পিছিয়ে পড়েছিল রচনার এই শো। তবে চলতি সপ্তাহে ফের যেই কে সেই। রচনা বরাবরই বুঝিয়ে দিয়েছেন তিনি লম্বা রেসের ঘোড়া। তা সে বিপরীতে দেব-জিৎ-কোয়েল-শুভশ্রী যেই আসুক না কেন, টিআরপিতে ‘টিভির দিদি’কে টক্কর দেওয়া মুশকিল। আরও পড়ুন: টপে এল নিম ফুলের মধু টিআরপি বাড়িয়ে, সেরার জায়গা খোয়াল নাকি অনুরাগের ছোঁয়া?

এদিকে চলতি সপ্তাহে ডান্স বাংলা ডান্সের টিআরপি ৪.৭। মহাগুরুর আসনে মিঠুন চক্রবর্তী থাকা মানেই হিট হবে ধরে নেওয়া যাচ্ছে। কারণ বাংলার মানুষ বহুদিন ধরে দেখতে চাইছেন মিঠুন চক্রবর্তীকে ডান্স রিয়েলিটি শো-তে। সেই ভালোলাগার কথা মাথায় রেখেই মিঠুনকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। বিচারকের আসন আলো করেছেন তিন সুন্দরী নায়িকা- মৌনি রায়, শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়, শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। আর সঞ্চালনা অঙ্কুশের। নানা বয়সী প্রতিযোগীদের নিয়ে এবারের শো। 

তিন নম্বরে এবারও সুপার সিঙ্গার ৪। টিআরপি তবে বেশ কমেছে। নেমে দাঁড়িয়েছে ২.৩-এ। 

নন ফিকশনের টিআরপি তালিকা-

দিদি নম্বর ১ সানডে ধামাকা (৫.২)

ডান্স বাংলা ডান্স (৪.৭)

সুপার সিঙ্গার ৪ (২.৩)

ঘরে ঘরে জি বাংলা (০.৯)

এই সপ্তাহে ‘ঘরে ঘরে জি বাংলা’-র টিআরপি আরও কমেছে। গত সপ্তাহেও ছিল ১.২। চলতি সপ্তাহে তা হয়েছে কমে ০.৯। বাংলা টেলিভিশনের দুই জনপ্রিয় অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ্য আর ইন্দ্রাণী হালদারের। রান্নাঘর শেষ করে এই রিয়েলিটি শো শুরু হয়েছে গত বছরের শেষে। তবে টিআরপি-র হাল বড়ই খারাপ। 

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।