US kept mission secret to avert WWIII: ‘ডগফাইট’ মিশন ৫০ বছর গোপন রেখেই এড়ানো গিয়েছিল তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ, দাবি আমেরিকার

Advertisement

সালটা ১৯৫২। সোভিয়েত ইউনিয়নের চারটি যুদ্ধবিমানকে গুলি করে নামিয়েছিল আমেরিকা। কিন্তু তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের আশঙ্কায় ৫০ বছরের বেশি সময় ধরে সেই রুদ্ধশ্বাস অভিযানের তথ্য গোপন রাখা হয়েছিল। এমনই দাবি করেছে আমেরিকা।

কী সেই ‘ডগফাইট’ মিশন?

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২১ সালে আমেরিকান ভেটেরিয়ান সেন্টারকে একটি সাক্ষাৎকারে মার্কিন সামরিক বাহিনীর প্রাক্তন সদস্য রয়েস উইলিয়াম জানিয়েছেন যে ১৯৫২ সালের ১৮ নভেম্বর কোরিয়ার যুদ্ধের সময় এফ৯এফ প্যান্থার ওড়াচ্ছিলেন। সেইসময় তাঁর বয়স ছিল ২৭। যা মার্কিন নৌসেনার প্রথম যুদ্ধবিমান ছিল। সেইসময় গ্রুপ লিডারের বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটি ধরা পড়েছিল। তারইমধ্যে কয়েকটি মিগ যুদ্ধবিমান দেখতে পেয়েছিলেন।

ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, উইলিয়াম জানান যে তাঁরা আচমকা সোভিয়েত ইউনিয়নের সাতটি মিগ-১৫ যুদ্ধবিমান (যা সেইসময় বিশ্বের সেরা যুদ্ধবিমান ছিল, দ্রুত উঁচুতে উড়তে পারত, গতি বাড়াতে পারত) দেখতে পেয়েছিলেন। যা মার্কিন টাস্ক ফোর্সের দিকে অগ্রসর হচ্ছিল। চারটি মিগ-১৫ যুদ্ধবিমান ঘুরে গিয়ে তাঁর দিকে ধেয়ে আসতে শুরু করেছিল এবং গুলি ছুড়তে শুরু করেছিল। সেইসময় সিনিয়রের নির্দেশ উপেক্ষা করেই ‘লড়াই’ শুরু করেছিলেন বলে দাবি করেন উইলিয়াম।

মার্কিন নৌসেনার তৎকালীন যুদ্ধবিমান চালক উইলিয়ামের দাবি, এফ৯এফ যুদ্ধবিমানে যে ৭৬০ রাউন্ড গুলি (২০ এমএম ক্যানন শেলের) ছিল, তা নিঃশেষ করে ফেলেছিলেন। তারইমধ্যে তাঁর বিমানের উইং কন্ট্রোল সারফেসে নিশানা করেছিল সোভিয়েত মিগ। কাজ করছিল না উইং কন্ট্রোল সারফেস। তা সত্ত্বেও সোভিয়েত মিগকে উইলিয়াম রুখে দিয়েছিলেন বলে দাবি করা হয়।

রিপোর্ট অনুযায়ী, উইলিয়ামের সেই অসামান্য সাহসের কাহিনি পুরোপুরি গোপন রাখা হয়েছিল। কারণ তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও অন্যান্য উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের আশঙ্কা ছিল যে ওই ঘটনার জেরে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয়ে যেতে পারে। যা বিশ্বকে ভয়ঙ্কর বিপদের মধ্যে ঠেলে দেবে।

আরও পড়ুন: IAF allows women in special commando force: কাঁপে জঙ্গিরা! বায়ুসেনার সেই ‘এলিট’ কমান্ডো ফোর্সে যোগ দিতে পারবেন মহিলারাও

মার্কিন নৌসেনার স্মৃতিসৌধের ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে, ওই ঘটনার পর উইলিয়ামের সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে নৌসেনার অ্যাডমিরাল, প্রতিরক্ষা সচিব, প্রেসিডেন্ট-সহ একাধিক উচ্চপদস্থ কর্তা কথা বলেছিলেন। ‘তাঁকে ওই ঘটনার বিষয়ে মুখ না খোলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কারণ আধিকারিকরা আশঙ্কা করেছিলেন যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাবে এবং তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয়ে যেতে পারে।’

আরও পড়ুন: Rafale: ৩৬টি রাফায়েলের শেষটাও চলে এল ভারতে, জানিয়ে দিল বায়ুসেনা, খেলা ঘুরে যাবে…

সেই পরিস্থিতিতে ২০০২ সালে গোপন তথ্য প্রকাশ করা হয়েছিল। যখন সেই তথ্য জনসমক্ষে প্রকাশ করা হয়েছিল, তখন উইলিয়ামের স্ত্রী’কে প্রথম সেই ‘ডগফাইট’-র কথা জানানো হয়েছিল। মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে বলা হয়েছিল, ‘নিজের দুর্দান্ত নৌবাহিনী জীবনের বাকি সময় এবং অবসরের কয়েক দশক পর পর্যন্ত উত্তর কোরিয়ার আকাশে সোভিয়েত ইউনিয়নের মিগ যুদ্ধবিমানের সঙ্গে তাঁর (উইলিয়াম) ডগফাইটের খবর গোপন রয়ে গিয়েছিল।’ 

(এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup)

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।