পুলিশের মদতেই এত বাড় বেড়েছে শান্তনুর, শ্যামপুর হত্যায় দাবি স্থানীয়দের

Advertisement

হাওড়ার শ্যামপুরে নাবালিকা মেয়ের সম্ভ্রম বাঁচাতে গিয়ে দুষ্কৃতীদের মারে বাবার মৃত্যুর ঘটনায় উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য। স্থানীয়দের দাবি গ্রেফতার হওয়া ৩ অভিযুক্তের অন্যতম শান্তনু হাপড়ের বাড়বাড়ন্ত পুলিশের মদতেই। এমনকী পুলিশের নাম করে দিন কয়েক আগে পর্যন্ত সে গ্রামবাসীদের ধমকাত বলে দাবি।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ধৃত শান্তনুই যাবতী নষ্টের গোড়া। এলাকায় চোলাই মদের সিন্ডিকেট চালায় সে। নিজেরও একটি চোলাই মদের ঠেক রয়েছে। প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, বছর কয়েক আগে কলকাতায় গয়নার দোকানে কাজ করত শান্তনু। তার বাবার ছিল সাইকেলের দোকান। হঠাৎ কলকাতার কাজ ছেড়ে সাইকেলের দোকানের আড়ালে চোলাই মদের কারবার শুরু করে শান্তনু। তার পর থেকেই তার নাটকীয় উত্থান। কয়েক বছরের মধ্যে কোটি টাকার মালিক হয়েছে সে। কিনেছে একাধিক গাড়ি ও সম্পত্তি।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, শান্তনুর চোলাই মদের ঠেকের জন্য এলাকার পরিবেশ বহুদিন ধরেই খারাপ হচ্ছিল। সেকথা পুলিশকে জানিয়েছিলেন তারা। কিন্তু পুলিশ কোনও পদক্ষেপ করেনি। উলটে শান্তনুই পুলিশের নাম করে এলাকাবাসীদের হুমকি দিতেন বলে অভিযোগ। এমনকী মারধরের অভিযোগও রয়েছে। এলাকাবাসীরা জানাচ্ছেন, ওই ঘটনায় কিল্টন বাগ নামে যে দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ, সে সম্পর্কে শান্তনুর ভগ্নিপতি।

শান্তনুর গ্রেফতারির পর থেকে বাড়ি ছেড়েছেন পরিবারের সদস্যরা। বাড়িতে রয়েছেন শুধু শান্তনুর বৃদ্ধা ঠাকুরদা।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।