Woman changes sex for GF: গার্লফ্রেন্ডের জন্য সেক্স পরিবর্তন তরুণীর, অন্য ছেলের জন্য ব্রেকআপ সেই বান্ধবীর

Advertisement

গার্লফ্রেন্ডের জন্য লিঙ্গ (সেক্স) পরিবর্তন করেছিলেন। কিন্তু অন্য এক পুরুষের সঙ্গে থাকতে শুরু করেন গার্লফ্রেন্ড। এমনই অভিযোগ তুললেন এক ‘তরুণী’। যিনি গার্লফ্রেন্ডের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, হেনস্থা, অপহরণের মতো অভিযোগ তোলেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে গার্লফ্রেন্ডকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। আপাতত জামিনে মুক্ত আছেন তিনি। ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের ঝাঁসির।

ইন্ডিয়া টুডে’র প্রতিবেদন অনুযায়ী, সোনাল নামে এক তরুণী বাবা-মায়ের সঙ্গে ঝাঁসিতে থাকতেন। ২০১৬ সালে সেখানেই পেয়িং গেস্ট হিসেবে থাকতে আসেন সানা। যিনি পরবর্তীতে লিঙ্গ পরিবর্তন করেছিলেন। ধীরে-ধীরে সোনাল এবং সানার মধ্যে বন্ধুত্ব গড়ে উঠেছিল। চারমাসের মধ্যেই দু’জনের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। কিন্তু সোনালের পরিবার সেই সম্পর্ক মেনে নেয়নি। সানাকে বাড়ি ছেড়ে যেতে বলা হয়েছিল।

ওই  প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৭ সালে সরকারি কোয়ার্টার মিলতে সেখানেই চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন সানা। চারদিন পরেই বাড়ি ছেড়ে সানার সঙ্গে থাকতে শুরু করেছিলেন সোনাল। তারপর সানাকে লিঙ্গ পরিবর্তনের জন্য চাপ দিতে থাকেন। লিঙ্গ পরিবর্তনের সার্জারি করার জন্য জোরাজুরি করতে থাকেন সোনাল। সেজন্য দু’জনে দিল্লির একটি হাসপাতালে গিয়েছিলেন। মেডিক্যাল টেস্টে দেখা গিয়েছিল যে লিঙ্গ পরিবর্তনের জন্য ফিট আছেন সানা।

সানা দাবি করেছেন, ২০২০ সালের ২২ জুন লিঙ্গ পরিবর্তনের জন্য অস্ত্রোপচার করিয়েছিলেন। ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, সানা দাবি করেছেন যে নাম পালটে সোহেল খান রাখেন। এমনকী অস্ত্রোপচারের জন্য হাসপাতালে ভরতি হওয়ার সময় সব নথিপত্রে নিজেকে সোহেলের ‘স্ত্রী’ হিসেবে স্বাক্ষর করেছিলেন সোনাল।

আরও পড়ুন: Relationship Problem: আমার বউ শুধু অন্তর্বাসে বাড়িতে ঘুরে বেড়ায়, ছেলেছোকরারা বাইরে থেকে হাঁ করে দেখে

কিন্তু ২০২২ সালেই সব পালটে যায় বলে দাবি করেছেন সানা। ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, সানা দাবি করেছেন যে গত বছর সোনাল সরকারি চাকরি পাওয়ার পরেই তাঁর আচার-ব্যবহারে বড় পরিবর্তন আসে। সানাকে এড়িয়ে যেতে শুরু করেন। তা নিয়ে প্রায়শই দু’জনের ঝগড়া হত। তারইমধ্যে সানা জানতে পারেন, ওই হাসপাতালেই কর্মরত এক ব্যক্তির সঙ্গে সোনালের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। তা নিয়ে দু’জনের একপ্রস্থ ঝামেলা হয়েছিল। তারপর বাড়িতে ফিরে আসেন সোনাল।

আরও পড়ুন: Relationship Advice: পুরুষদের এই ৫ অভ্যেস মেয়েদের ভীষণ অপছন্দের, ভুলেও করবেন না

ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, সেই ঘটনার পর সোনালের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন সানা। তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণ, অপহরণের মতো অভিযোগ তোলেন। পুলিশেও অভিযোগ দায়ের করেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে সোনালকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছিল। পরবর্তীতে আদালতের দ্বারস্থ হন সানা। কিন্তু একাধিকবার সমনের পরও আদালতে হাজির না হওয়ায় ১৮ জানুয়ারি সোনালকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। আপাতত জামিনে মুক্ত আছেন তিনি।

(এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup)

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।