Fishery Development Corporation: ৭ মাস ধরে বন্ধ মৎস্য উন্নয়ন নিগমের অস্থায়ী কর্মীদের বেতন, দ্রুত মেটানোর আশ্বাস

Advertisement

বেহাল অবস্থা রাজ্যের মৎস্য উন্নয়ন নিগমের। অস্থায়ী কর্মীরা গত ৭ মাস ধরে তারা বেতন পাচ্ছেন না। ফলে সমস্যায় পড়েছেন মৎস্য উন্নয়ন নিগমের কর্মীরা। তারা চরম সংকটের মধ্য দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন। আর এর ফলে ধুঁকছে মৎস নিগমের বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ। দ্রুত এই সমস্যার সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন মৎস্যমন্ত্রী।

অনেক ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে রাজ্যের বিভিন্ন দফতর বরাদ্দ করা অর্থ খরচ করতে পারছে না। কিন্তু, গত ৭ মাস ধরে কেন মৎস্য দফতরের এই অবস্থা তাই নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। মৎস্য উন্নয়ন নিগমের ১৬টি প্রকল্পে বিভিন্ন জেলায় মাছ চাষ হয়ে থাকে। সেই প্রকল্পে ১ হাজারেরও অস্থায়ী কর্মী কাজ করে থাকেন। তাঁরা পারিশ্রমিক পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ তুলেছেন। বেতন বকেয়া রয়েছে সে কথা স্বীকার করে নিয়েছেন রাজ্যের মৎস্যমন্ত্রী বিপ্লব রায়চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘অর্থের অভাবে কর্মীদের বকেয়া দেওয়া যাচ্ছে না। রাজ্যের কাছ থেকে টাকা পাঠানো হলে বকেয়া মেটানো হবে।’

প্রসঙ্গত, এর আগে বকেয়া টাকা মেটানোর আশ্বাস দিয়েছিলেন মৎস্যমন্ত্রী। কিন্তু তারপরও কর্মীদের বকেয়া মেটানো হয়নি। উল্লেখ্য, একসময় বেশ লাভজনক জায়গাতেই পৌঁছে গিয়েছিল মৎস্য দফতর। এই দফতরের ব্যাঙ্কে কয়েকশো কোটি টাকা স্থায়ী আমানত ছিল। তারপরেও কেন কর্মীদের বেতন দেওয়া হচ্ছে না তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

পূর্ব মেদিনীপুরের দীঘা, শংকরপুর, আলমপুর, দক্ষিণ ২৪ পরগনার ফ্রেজারগঞ্জ, পূর্ব বর্ধমানের যমুনা দিঘি প্রভৃতি জায়গায় মৎস্য দফতরের একাধিক প্রকল্প রয়েছে। কিন্তু, নতুন করে কোনও কর্মী নিয়োগ করা হয়নি। এদিকে, কর্মীদের অনেকে টাকা না মেলায় ঠিকমতো সংসার চালাতে পারছেন না। এই প্রশ্ন পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিকেই তাকিয়ে রয়েছেন কর্মীরা। বিভিন্ন প্রকল্পের নিজস্ব আয় থেকে কর্মীদের টাকা পরিশোধের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন নিগমের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শুভময় ভট্টাচার্য।

 

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।