Hiran Chatterji: কেশপুরে অভিষেকের সভাতেই কি পদ্ম ত্যাগ হিরণের? জোর জল্পনা কুণালের দাবিতে

Advertisement

শেষ পর্যন্ত কি তৃণমূলেই ফিরে যাচ্ছেন বিজেপি বিধায়ক তথা অভিনেতা হিরণ চট্টোপাধ্যায়? এই প্রশ্নই এখন ‘ট্রেডিং টপিক’। সম্প্রতি তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অফিসে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করেছেন হিরণ, এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই জল্পনার সূত্রপাত। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবিও ঘুরে বেড়াতে শুরু করে। তৃণমূলের একাংশের দাবি, দলে ফিরে আসার জন্য অভিষেকের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন অভিনেতা। তাঁর ফিরে আসা এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা।

যদিও হিরণ এই দাবি অস্বীকার করেছেন। টুইটারে একটি পুরনো সভার ভিডিয়ো পোস্ট করেছেন। তাতে সরাসরি কিছু না লেখা থাকলেও, ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে তিনি ‘শ্রীরাম’ ধ্বনি দিচ্ছেন এবং বলছেন এই ধ্বনি পৌঁছে যাবে নবান্নের ১৪ তলায়। পোস্টটি ট্যাগ করেছেন রাজ্য এবং জাতীয় নেতাদের।

তিনি নিজের টুইটার প্রোফাইল থেকে বিজেপি শব্দটি মুছে ফেলেছেন।

Advertisement

আবার একই সঙ্গে তিনি নিজের টুইটার প্রোফাইল থেকে বিজেপি শব্দটি মুছে ফেলেছেন। তার জায়গায় লেখা কাউন্সিলর ও খড়্গপুর সদরের বিধায়ক। কোন দলের সঙ্গে যুক্ত তা লেখা নেই। দু’টি বিষয়ই খুব ইঙ্গিতবাদী। অতীতেও যাঁরা বিজেপি থেকে তৃণমূলে গিয়েছিলেন তাঁদের অনেকেই এ রকম অদ্ভুত এক দোলাচল অবস্থান তৈরি করেছিলেন। হিরণ কি তবে সেই পথে হেঁটে তৃণমূলে যোগ দেবেন?

কেন বিজেপি ছাড়বেন হিরণ তা নিয়েও জল্পনা চলছে। উঠছে আসছে তাঁর সঙ্গে বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষের সম্পর্ক প্রসঙ্গও। ২০২১ সালে বিধানসভা ভোটের আগে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর ভোটে জিতে খড়্গপুর সদরের বিধায়ক হন হিরণ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর কেন্দ্রটি দিলীপ ঘোষের লোকসভা কেন্দ্র মেদিনীপুরের অন্তর্গত। কিন্তু তাঁর সঙ্গে হিরণের সম্পর্ক মোটেই ‘মসৃণ’ নয়। অভিষেকের দফতরে অভিনেতার অপেক্ষা করার ছবি ভাইরাল হওয়া নিয়ে দিলীপ বলেন,’যাঁর ছবি ভাইরাল হয়েছে তাঁকেই এর কৈফিয়ত দিতে হবে।’ রাজ্যে বিভিন্ন কাজে থাকলেও পদাধিকার বলে তিনি কেন্দ্রীয় নেতাও বটে। তার তাই তাঁর এই মন্তব্য হিরণের কাছে অস্বস্তির কারণ।

যদিও বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে হিরণের সম্পর্ক ভালো। বিজেপি সূত্রে দাবি, তিনিই বুঝিয়েসুজিয়ে কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া থেকে খড়্গপুর সদরের বিধায়ককে বিরত রেখেছেন।

বিজেপিতে যোগ হিরণ চক্রবর্তীর। (ছবি সৌজন্য বিজেপি)
বিজেপিতে যোগ হিরণ চক্রবর্তীর। (ছবি সৌজন্য বিজেপি)

এই ছবি প্রসঙ্গে তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, ‘হিরণ নিয়ে বিজেপি সান্ত্বনা পুরস্কারের কথা ভাবছে। কেউ অভিষেকের সঙ্গে দেখা করে গেছেন। কেউ চাইছেন তাড়াতাড়ি যোগ দিতে। অনেকে আবার দূর্গাপুরের বৈঠকের মাঝে হোয়াটসঅ্যাপ করছেন। (দুর্গাপুরে বিজেপির কার্যকরণীর সভা) বিজেপি জানেই না অনেকে দল বদল করতে প্রস্তুত। যোগদান মেলায় যাঁরা ছিলেন, তাঁরা বিয়োগ মেলায় আসতে প্রস্তুত। উট পাখির মতো বালিতে মুখ গুজে যদি ভাবে ঝড় আসেনি, তাহলে ভুল ভাবছেন।’

গত বিধানসভা ভোটের আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। একদা অভিষেক ঘনিষ্ঠ হিরণ কি এবার তাঁর সভাতেই তৃণমূলে ফিরবেন? উল্লেখ্য, আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি পশ্চিমমেদিনীপুরের কেশপুরে একটি সভা রয়েছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।