অজিদের বিরুদ্ধে টেস্ট দলে সূর্যকে সুযোগ দেওয়া নিয়ে অবশেষে নীরবতা ভাঙলেন সরফরাজ

Advertisement

বর্ডার-গাভাসকর সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম দুই টেস্টের জন্য বিসিসিআই ১৭ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণার পর থেকে রীতিমতো সমালোচনার ঝড় বয়ে চলেছে। বিশেষ করে টানা ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো খেলার পরেও সরফরাজ খানকে সুযোগ দেওয়া হয়নি। অথচ সে ভাবে লাল-বলের ক্রিকেট না খেলেও দলে জায়গা করে নিয়েছেন সূ্র্যকুমার যাদব।

এমন কী ইশান কিষাণও জায়গা করে নিয়েছেন। তবে ঋষভ পন্ত না থাকায়, ইশানকে নিয়ে খুব বেশি চর্চা না হলেও, আলোচনা চলছে সরফরাজের পরিবর্তে সূর্যের দলে সুযোগ পাওয়া নিয়ে।

আরও পড়ুন: বড় দলের বিরুদ্ধে ভারতের এই বোলিং ধ্যাড়াবে- তীব্র খোঁচা তারকা পাক ক্রিকেটারের

লাল বলের ক্রিকেটে সূর্যকুমার পরীক্ষিত নন। তুলনায় রঞ্জি ট্রফিতে সরফরাজের রানের আধিক্য নজর কাড়া। ২৫ বছরের তারকা ২০১৯-২০ মরশুমে ১৫৪.৬৬-এ ৯২৮ রান করেছেন। ২০২১-২২ মরশুমে আবার ১২২.৭৫-এ ৯৮২ রান করেছেন। এবং চলতি মরশুমে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৯২ গড়ে ৫০০ রান করেছেন। অন্য দিকে সূর্যকুমারের লাল-বলের ক্রিকেটে পারফরম্যান্স কার্যত নেই বললেই চলে। গত ডিসেম্বরে রঞ্জি ট্রফি খেলায় তিনি ৮০ বলে ৯০ রান করার আগে পর্যন্ত গত তিন বছর লাল বলের ক্রিকেটই খেলেননি।

সাংবাদিক বিমল কিমারের সূর্যকুমারের নির্বাচন সম্পর্কে জিজ্ঞেস করেছিলেন সরফরাজকে। এবং জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার জন্য সূর্যকে যে ভাবে অপেক্ষা করতে হয়েছিল, সেটা সরফরাজের কাছে অনুপ্রেরণার কিনা জানতে চেয়েছিলেন সাংবাদিকষ সরফরাজ জানিয়েছেন যে, সূর্য আর তাঁর মধ্যে একটি ভালো বন্ধুর মতো সম্পর্ক রয়েছে। এবং তিনি সূর্যেপ থেকে অনেক কিছু শিখে থাকেন।

আরও পড়ুন: ধোনি জয়ের চেষ্টা না করায় ক্ষোভে ফেটে পড়েছিল রবি- শ্রীধরের বইতে চাঞ্চল্যকর তথ্য

সরফরাজ বলেন, ‘সূর্যকুমার আমার ভালো বন্ধু। আর আমরা যখন একসঙ্গে দলে থাকি, তখন একসঙ্গে অনেকটা সময় কাটাই। ওর কাছ থেকে অনেক কিছু শিখতে পারি। ওকে দীর্ঘ সময়ের জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছিল তবে ও যে ভাবে খেলছে, তাতে ওর অভিজ্ঞতা বাড়ছে, যাতে সবটা সহজ হয়ে যাচ্ছে।’

দল ঘোষণার পরে গত সপ্তাহে টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে একটি সাক্ষাৎকারে তাঁর প্রথম প্রতিক্রিয়া দিয়েছিলেন। বলছিলেন, ‘যখন দল ঘোষণা করা হয়েছিল এবং সেখানে আমার নাম ছিল না, আমি খুব দুঃখ পেয়েছিলাম। এই পৃথিবীতে আমার জায়গায় যে কেউ দুঃখিত হবে, কারণ আমি আশা করেছিলাম যে, সুযোগ পাব। কিন্তু নির্বাচিত হইনি। গত কাল (দল ঘোষণার দিন) সারা দিন আমার খুব মন খারাপ ছিল। আমরা তখন গুয়াহাটি থেকে দিল্লি যাচ্ছিলাম। আমি ভাবছিলাম, কী কারণে এবং কেন এটা ঘটছে। আমার নিজেকে তখন একা মনে হচ্ছিল। আমি কেঁদেওছিলাম।’

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।