Nepal Air Crash impact on Tourism: ছড়িয়েছে আতঙ্ক, পোখরার বিমান দুর্ঘটনায় ধাক্কা খেতে পারে নেপালের অর্থনীতি

Advertisement

নেপালের পোখরায় সম্প্রতি ইয়েতি এয়ারলাইন্সের বিমান দুর্ঘটনায় ৭২ জনের মৃত্যু হয়েছে। ১৯৯২ সালের পর এটাই সবথেকে ভয়ানক বিমান দুর্ঘটনা নেপালে। এদিকে গত ১১ বছরে ১১টি বিমান দুর্ঘটনার সাক্ষী থেকেছে হিমালয়ের কোলে থাকা এই দেশটি। গতবছরও তারা এয়ারের একটি বিমান ভেঙে পড়ায় প্রাণ হারিয়েছিলেন ২২ জন। তবে এবারের দুর্ঘটনার প্রভাব একটু সুদূরপ্রসারিত হতে চলেছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। নেপালের ছবির মতো সুন্দর বিমানবন্দরগুলির কোনওটা হিমালয়ের পাদদেশে, কোনওটা অনেক উঁচুতে, আবার কোথাও রানওয়ে খুবই ছোট। তাছাড়া পাহাড়ি এলাকা এবং পরিবর্তনশীল আবহাওয়ার জেরে নেপালে বিমান চালানো খুবই কঠিন। রাষ্ট্রসংঘের অনুমোদিত আন্তর্জাতিক অসামরিক বিমান পরিবহণ সংস্থা নেপালের বিমান চলাচলের পরিকাছামোর উন্নয়নের জন্য বিগত দিনে কাজ করার চেষ্টা করেছিল। তবে তারাও বলে, ‘নেপাল যতটা সুন্দর, বিমান চলাচলের জন্য ততটাই বিপজ্জনক এই দেশ।’ (আরও পড়ুন: ছয় দশকে এই প্রথমবার জনসংখ্যা কমল চিনে, মিলল কিসের ইঙ্গিত?)

ইয়েতি এয়ারের দুর্ঘটনার পরপরই নেপালের পর্যটন শিল্পে বড় ধাক্কা লেগেছে। সেই দেশের মোট জিডিপির ৭ শতাংশ সরাসরি পর্যটনের ওপর নির্ভর। এদিকে নেপালেরও আরও অনেক শিল্প আছে যেগুলি পরোক্ষ ভাবে পর্যটনের ওপর নির্ভরশীল। এই আবহে পোখরায় বিমান ভেঙে পড়ার পরই কপালে চিন্তার ভাঁজ দেখা গিয়েছে অনেকের। এবং তাদের আশঙ্কা সত্যি প্রমাণিত করে পরপর বুকিং বাতিল করছেন পর্যটকরা। উল্লেখ্য, নেপালে পর্যটরদের ভ্রমণের সবথেকে জনপ্রিয় মাধ্যম বিমান। নেপালে ঢুকতে বা নেপালের বিভিন্ন জায়গায় যেতে বিমানেই চড়েন ৯০ শতাংশের ওপর পর্যটক। এই আবহে বিমান দুর্ঘটনায় শঙ্কায় ভুগছেন পর্যটকরা। তাই বাতিল হচ্ছে বুকিং। আর এর জেরে সরাসরি প্রভাব পড়তে চলেছে নেপালের অর্থনীতির ওপর।

সরকারি তথ্য বলছে, ২০২১ সালে দেড় লক্ষেরও বেশি পর্যটক নেপালে যান। তাঁদের মধ্যে প্রায় সবাই বিমানে করেই নেপালে গিয়েছেন। তবে ২০২৩ সালের শুরুতেই পোখরার মর্মান্তিক দুর্ঘটনার জেরে সারা বছরের জন্য পর্যটন শিল্পকে ধাক্কা দিল বলে মনে করা হচ্ছে। ভারতের পর্যটন ব্যবসার অন্যতম বড় প্রতিষ্ঠান এসটিআইসি ট্র্যাভেলসের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সুভাষ গোয়াল জানান, পোখরার দুর্ঘটনার পরই নেপালের ৬০ শতাংশ বুকিং বাতিল করেছেন পর্যটকরা। এই পরিস্থিতিতে নেপালের অর্থনীতি চাপে পড়তে চলেছে বলে আশঙ্কা অনেকেরই। কারণ ভারতের পাশাপাশি অন্যান্য দেশেরও পর্যটকরা নেপালে ঘুরতে যাওয়া নিয়ে দ্বিধাগ্রস্ত।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।