Temple vandalised: অস্ট্রেলিয়ায় হিন্দু মন্দিরে ভাঙচুর, ভারত বিরোধী স্লোগান লেখা দেওয়ালে! চাঞ্চল্য

Advertisement

অস্ট্রেলিয়ার মেলবর্নের মিলপার্কে অবস্থিত হিন্দু মন্দিরে ভাঙচুরের ঘটনায় ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য়। সেখানে BAPS স্বামীনারায়ণ মন্দিরে এই ভাঙচুরের ঘটনায় কোনও ভারত বিরোধী সংগঠনের সদস্যরা রয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, মন্দিরের দেওয়ালে লেখা রয়েছে ভারত বিরোধী নানান ধরনের স্লোগান। আর তা থেকেই অনুমান করা হচ্ছে যে এই কাজ কোনও ভারত বিরোধী সংগঠনের সদস্যদের।

‘অস্ট্রেলিয়া টুডে’তে এই খবর প্রকাশিত হতেই এদিন চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। স্থানীয়রা অনেকেই বলছেন, তাঁরা বৃহস্পতিবার মন্দিরে যখন গিয়েছিলেন, তখনই দেখতে পান কয়েকজন সেখানে চালাচ্ছেন ভাঙচুর। একজন প্রত্যক্ষদর্শীর বয়ান তুলে ধরেছে স্থানীয় সংবাদপত্র ‘অস্ট্রেলিয়া টুডে’। সেখানে এই প্রত্যক্ষদর্শী বলছেন, ‘ আমি যখন মন্দিরে গিয়েছিলাম সকালে, তখন মন্দিরের দেওয়ালে রঙ দিয়ে কিছু লেখা ছিল, করা ছিল গ্র্যাফিটি। যা হিন্দুদের নিয়ে খালিস্তানপন্থীদের তরফে কিছু লেখা ছিল।’ ওই ব্যক্তি বলছেন, ‘আমার রাগ হচ্ছে, ভয় লাগছে।’ তিনি বলছেন, এভাবে খোলাখুলি ধর্মীয় ভেদাভেদ নিয়ে হিংসার প্রকাশ নিয়ে তিনি হতবাক। তিনি গোটা ঘটনার অভিযোগ তুলেছেন খালিস্তানপন্থী সমর্থকদের দিকে। তাঁর মতে, ‘শান্তিপ্রিয় হিন্দুদের প্রতি এটি খালিস্তানপন্থীদের হিংসা’র প্রকাশ। 

এদিকে, অস্ট্রেলিয়ার BAPS স্বামী নারায়ণ মন্দির কতৃপক্ষ জানিয়েছে, ‘গভীরভাবে শোকাহত ও হতবাক এই ভাঙচুর ও হিংসার ঘটনায়।’ বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, তাঁরা ‘শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান ও সব ধর্মের সঙ্গে আলোচনার সপক্ষে।’ উল্লেখ্য, ঘটনার কথা স্থানীয় অস্ট্রেলিয়া প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। এদিকে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্টনি অ্যালবেনিজ সদ্য এক ভিডিয়ো মেসেজ পাঠান মন্দিরের প্রধানকে । এক ভিডিয়ো বার্তায় মন্দিরের প্রমুখ স্বামী মহারাজকে তিনি তিনি BAPS ও তাঁর ১০০ তম জন্মদিনে ‘উষ্ণ অভ্য়র্থনা’ জানিয়েছেন। সেই অডিয়ো মেসেজ তিনি অস্ট্রেলিয়ার অবস্থিত ভারতীয় হাইকমিশনের কাছে পাঠিয়েছেন। নিজের বক্তব্যে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানোর পর অ্যান্থনি অ্যালবানিজ জানিয়েছেন, ‘সিডনিতে BAPS নির্মিত আরও মন্দিরের নির্মাণের দিকে আমি তাকিয়ে আছি।’ নিজের বার্তায় অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, অস্ট্রেলিয়ায় ভারতীয় সম্প্রদায়ের অবদান অনবদ্য। ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার বন্ধুত্ব সম্পর্কেও তিনি প্রশংসা বাক্য তুলে ধরেন। তবে অস্ট্রেলিয়ার বুকে হিন্দু মন্দির ধ্বংসের ঘটনায় কে বা কারা যুক্ত তা নিয়ে রয়েছে বহু জল্পনা। এদিকে, এর আগে ইউকের বুকে কয়েক মাস আগেই ভারত পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে এমন হিংসার ঘটনা দেখা গিয়েছে। তারও আগে কানাডায় ধর্মীয় স্থানে ভাঙচুরের এমন ঘটনা দেখা গিয়েছে। 

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup।

 

 

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।