In the past two years, I hadnt started this way, says Virat Kohli

Advertisement

জি ২৪ ঘণ্টা ডিজিটাল ব্যুরো: আইসিসি (ICC) ইভেন্টে চ্যাম্পিয়ন না হলেও, তাঁর অধিনায়কত্বে টিম ইন্ডিয়া (Team India) একের পর এক সাফল্য পাচ্ছিল। কিন্তু অবস্থার বদল ঘটতে শুরু করে ২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের (ICC T20 World Cup 2021) আগে। বিসিসিআই-এর (BCCI) প্রাক্তন সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের (Sourav Ganguly) আমলে একটা সময় একঘরে হয়ে পরেছিলেন বিরাট কোহলি (Virat Kohli)। একে তো ব্যাটে তিন অঙ্কের রান ছিল অধরা। এরমধ্যে কর্তাদের সঙ্গে ইগোর লড়াই উঠেছিল চরমে। সেইজন্যই হয়তো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মাসখানেক আগে ছেড়েছিলেন অধিনায়কত্ব। কয়েক মাস পরে তাঁর কাছ থেকে একদিনের দলের তাজও কেড়ে নেওয়া হয়। এরপর ২০২২ সালের গোড়ার দিকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ হারের পর, লাল বলের অধিনায়কত্বও ছেড়ে দিয়েছিলেন ‘কিং কোহলি’ (King Kohli)। তবে এত ঝড় ঝাপ্টা হজম করেও তিনি আবার স্বমহিমায় ধরা দিলেন। নতুন বছরের শুরুতেই একদিনের ফরম্যাটে সেরে ফেললেন ৪৫তম শতরান। শ্রীলঙ্কার (Sri Lanka) বিরুদ্ধে ৮৭ বলে ১১৩ রান করার পর সতীর্থ সূর্য কুমার যাদবকে (Suryakumar Yadav) নিজের কালো দিনের যন্ত্রণার কথা তুলে ধরলেন বিরাট। সেই সাক্ষাৎকারের ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করেছে।  

বিরাট বলেছেন, ‘কোনও কোনও ক্ষেত্রে হয় যে মানুষকে তোমায় আলাদাভাবে দেখতে শুরু করে। তুমিও দেশের হয়ে আরও অনেক ম্যাচ খেলবে। তোমায় নিয়েও এমন প্রত্যাশা তৈরি হবে। সাধারণ মানুষ প্রত্যাশা করবেন যে সূর্য যখন মাঠে নেমেছে, তখন দারুণ খেলবেই। সেই প্রত্যাশার চাপের মধ্যে (একই ছন্দে) খেলে যাওয়া অত্যন্ত কঠিন কাজ। যতক্ষণ তোমার ফর্ম ভালো থাকে, তখন ওই বিষয়গুলি ঠিকভাবে এগিয়ে যায়। নির্দিষ্ট ছন্দে এগিয়ে যায়। কিন্তু একটু ফর্ম পড়লেই সমস্যা শুরু হয়। এরসঙ্গে যোগ হয় বাইরের কিছু মানুষের তৈরি করা চাপ। আমার ক্ষেত্রেও এমনটা হয়েছে। তাই হতাশা বাড়ছিল।’ এখানেই থেমে থাকেননি তিনি। বিরাট ফের যোগ করেন, ‘মাঠের ভিতরে ও বাইরে এত চাপের মধ্যেও আমি আগের মতোই খেলতে চাইছিলাম। মানুষের প্রত্যাশার মূল্য চোকানোর জন্য আমাকে আগ্রাসী খেলতে হবে এমন ভাবনা চেপে বসেছিল। কিন্তু ক্রিকেট আমায় সেটা করতে দিচ্ছিল না। আমি মারাত্মক মানসিক চাপের মধ্যে একটা সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলাম। এর ফলে আমি নিজের ক্রিকেট থেকে অনেক দূরে সরে গিয়েছিলাম।’ 

আরও পড়ুন: Virat Kohli and Rohit Sharma, IND vs SL: ফর্মে ফেরা বিরাট-রোহিতকে দেখে বড় মন্তব্য করলেন অশ্বিন

আরও পড়ুন: Virat Kohli, IND vs SL: কীভাবে ৩৪ বছরেও রাজার মতো কামব্যাক? জানালেন ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি করা বিরাট

সেই কঠিন সময় তাঁর স্ত্রী অনুষ্কা শর্মা, পরিবার ও কাছের কিছু বন্ধুবান্ধব বিরাটের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। সেই সময় ভুলে যাননি। তাই তাঁর প্রতিক্রিয়া, ‘সেই কঠিন সময় বুঝে গিয়েছিলাম যে, বাস্তব ছবিটা থেকে পালাতে পারব না। আমি এই মুহূর্তে যেরকম, সেটা স্বীকার করতে হবে। আমি যখন ভালো খেলতে পারছি না, তখন আমি সবথেকে খারাপ খেলোয়াড় বলে স্বীকার করতে হবে। ওই বিষয়টি অস্বীকার করা যাবে না। সেটা অস্বীকার করছিলাম বলে আমি হতাশায় ডুবে যাচ্ছিলাম। আমি নিজের বৃত্তের মধ্যে খিটখিটে হয়ে যাচ্ছিলাম। যেটা একেবারেই ঠিক নয়। কিন্তু সেটা নিজের চারপাশের মানুষের জন্য ঠিক নয়। যাঁরা তোমায় সবসময় সমর্থন করে, তাঁরা তোমায় ওরকমভাবে দেখবে, সেটা অনুষ্কা বা আমার কাছের মানুষ কারও জন্য সেটা ঠিক নয়। কিন্তু ওরা আমার সব আবদার সহ্য করেছে।’ 

গত তিন বছর ধরে চলা তিন অঙ্কের রানের খরা কেটে গিয়েছে। তাই তো শতরানের পর এখন আর লম্ফঝম্প করেন না। বরং একবার শুধু লাফিয়ে ‘ফিস্ট পাম্প’ করে, আকাশের দিকে ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানান। গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে (ICC T20 World Cup 2022) পাকিস্তানের (Pakistan) বিরুদ্ধে সেই রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ জেতানোর পর যেমন আকাশের দিকে তাকিয়েছিলেন। মঙ্গলবার শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে একদিনের ক্রিকেটে ৪৫তম শতরানের পর বিরাটকে ঠিক সেইভাবেই দেখা গেল। বেশ বোঝা যাচ্ছে ৩৪ বছরের বিরাট অনেক ধীরস্থির। তাঁর কথাবার্তায় সেটাই তো বোঝা যাচ্ছে। 

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App) 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।