সহযাত্রীর প্রস্রাব থেকে ভুল করে ফেলে চলে যাওয়া, প্লেনযাত্রায় আসছে নানা বিভ্রাট

Advertisement

Airlines News: একসময়ে বিমানযাত্রা মানে বেশ বিলাসবহুল একটি ব্যাপার ছিল। কিন্তু এখন মনে হয় আর সেই দিন নেই। কোথাও যাত্রীদের গায়ে মদ্যপ সহযাত্রী প্রস্রাব করে দিচ্ছেন। কোথাও আবার বোমা নিয়ে মিথ্যা আতঙ্ক ছড়ানো হচ্ছে। আবার কখনও ৫০ জন যাত্রীকে ফেলে রেখেই উড়ে যাচ্ছে বিমান। এমন একের পর এক ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে অসামরিক উড়ান নিয়ন্ত্রক। তুমুল অব্যবস্থা, সমস্যার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে DGCA(ডিরেক্টরেট জেনারেল অফ সিভিল এভিয়েশন)। এর মধ্যে কয়েকটি ঘটনা আলাদা করে নোট করেছে তারা। সেই বিষয়ে তদন্তও চলছে। বেয়াদব যাত্রীদের মোকাবিলা করার বিষয়েও উড়ান সংস্থাগুলিকে ছাড়পত্র দিয়েছে DGCA । তাঁদের মতে, এমন যাত্রীদের বিরুদ্ধে সেভাবে কোনও পদক্ষেপ নিচ্ছে না বিমান সংস্থাগুলি। আর সেই কারণেই ক্রমেই বাড়ছে এমন ঘটনা। আরও পড়ুন: ভাবমূর্তিতে দাগ পড়ছে – বিমানে বেয়াদপ যাত্রীদের শায়েস্তা করতে অ্যাডভাইজরি DGCA-র

সম্প্রতি বেশ কিছু এমন ঘটনা ঘটেছে, যা জানার পর বিমানে চড়তে আপনি একটু ভয়ই পাবেন।

৫৫ জন যাত্রীকে ফেলে রেখেই বিমান পগার পার!

বাসে তখনও প্রায় ৫৫ জন যাত্রী। এদিকে তাঁদের বোর্ডিং না করিয়েই রওনা দিল GoFirst-এর বিমান। বেঙ্গালুরু-দিল্লিগামী এই উড়ানের ঘটনা ঘিরে শুরু হয়েছে তুমুল বিতর্ক। কীভাবে বেঙ্গালুরুতে ৫৫ জন যাত্রীকে ফেলে রেখেই বিমান চলে গেল, তা বুঝে উঠতে পারছেন না কেউই। তবে DGCA ইতিমধ্যেই বেশ কিছু ত্রুটি-গাফিলতি চিহ্নিত করেছে। একটি শো-কজ নোটিশ পৌঁছেছে বিমানসংস্থার কাছে। তাতে ‘কমিউনিকেশন, কোঅর্ডিনেশন এবং নিয়ন্ত্রণের অভাব’ রয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। পড়ুন সেই খবর: 

বোমার আতঙ্ক

মার্কিন মুলুকে একটি জোক খুব চলে। মার্কিনিরা বলেন, বিমানবন্দরে গিয়ে ‘Bomb’ শব্দটি ভুলেও উচ্চারণ করবেন না। তাহলেই বারোটা বেজে যাবে।

না, বিমানবন্দরে গিয়ে বা বিমানে চড়ে কেউ এমন ভয় দেখাননি। তবে চলতি সপ্তাহে সোমবার, হঠাত্ই মস্কো-গোয়ার উড়ান নিয়ে একটি ভুয়ো ই-মেল পাঠানো হয়। তাতে বলা হয়, এই উড়ানটিতে একটি বোমা রাখা আছে। এর পরেই বিমানটি আপদকালীন হিসাবে গুজরাটের জামনগরে অবতরণ করানো হয়। দ্রুত নামিয়ে আনা হয় ২৩৬ জন যাত্রী এবং ৮ জন ক্রু সদস্যকে। এরপর পুলিশ এবং স্থানীয় কর্তৃপক্ষ বিমানে তন্ন তন্ন করে খোঁজেন। পৌঁছে যায় বিস্ফোরক চিহ্নিতকরণ এবং ডিজপোজাল স্কোয়াড। তারাও কিছুই পাননি। পড়ুন সেই খবর: ‘বোমা আছে’, উড়োফোনে গুজরাটে ঘুরিয়ে দেওয়া হল মস্কো-গোয়া বিমান, ছিলেন ২৪৪

জামনগরের কালেক্টর সৌরভ পারধি বলেন, ‘আমাদের মনে হচ্ছে, বিস্ফোরণের হুমকিটা একটা ভুয়ো ইমেলই ছিল।’

বোঝো কাণ্ড!

যাত্রী গায়ে প্রস্রাব

গত বছর ২৬ নভেম্বর টাটা অধীনস্থ এয়ার ইন্ডিয়ায় এমন নিন্দনীয় ঘটনা ঘটে। নিউ ইয়র্ক-দিল্লিগামী উড়ানে এক ব্যক্তি বয়স্ক সহযাত্রীর গায়ে প্রস্রাব করে দেন। এরপর ফের ৬ ডিসেম্বর একই ধরনের ঘটনা ঘটে। প্যারিস থেকে দিল্লিগামী উড়ানে এক যাত্রী সহযাত্রীর চাদরে প্রস্রাব করে দেন। সেই সময়ে ওই মহিলা সিটে চাদর রেখে টয়লেটে গিয়েছিলেন। এসে গোটা ঘটনা দেখে তিনি স্তম্ভিত হয়ে যান। পড়ুন সেই ঘটনা: মত্ত হয়ে এয়ার ইন্ডিয়ার উড়ানে বিজনেস ক্লাসে মহিলার গায়ে মূত্র বিসর্জন ব্যক্তির!

চলতি সপ্তাহে সোমবার এই দুই ঘটনার তদন্ত রিপোর্ট পেশ না করার জন্য এয়ার ইন্ডিয়াকে নতুন করে শো-কজ করেছে DGCA ।

ফলে এবার থেকে বিমানযাত্রার আগে একটু ইষ্টদেবতার নাম নিয়ে বের হবেন। বলা যায় না, চারদিকে যা হচ্ছে!

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।