Delhi MCD Mayor Election: দিল্লির মেয়র নির্বাচনকে কেন্দ্রকে করে ধুন্ধুমার, বিশৃঙ্খলার মাঝেই উঠল স্লোগান

Advertisement

আজ দিল্লির নবনির্বাচিত মিউনিসিপ্যাল ​​কর্পোরেশনের কাউন্সিলরদের শপথগ্রহণের আগে বিশাল বিশৃঙ্খলা দেখা দিল পুরনিগমে। আজ দিল্লি পুরনিগমের মেয়র নির্বাচন করার জন্য মিলিত হয়েছিলেন দিল্লির নবনির্বাচিত কাউন্সিলররা। এদিকে মেয়র নির্বাচনের আগে কাউন্সিলরদের শপগ্রহণ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। নির্বাচিত কাউন্সিলরদের আগে মনোনীত এক কাউন্সিলরকে শপথগ্রহণের জন্য আহ্বান জানান অস্থায়ী স্পিকার সত্য শর্মা। উল্লেখ্য, সত্য শর্মাকে অস্থায়ী স্পিকার হিসেবে নিয়োগ করেছেন দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নর ভিকে সক্সেনা। আম আদমি পার্টির সদস্যরা দাবি করেন যে মনোনীত সদস্যদের আগে নির্বাচিত সদস্যদের শপথ নেওয়া উচিত ছিল। (আরও পড়ুন: বিমানে মহিলার গায়ে প্রস্রাব করেও কীভাবে গ্রেফতারি এড়িয়েছিলেন মত্ত ব্যবসায়ী?)

উল্লেখ্য, নির্বাচনে আম আদমি পার্টিকে কড়া টক্কর দিলেও সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে কিছুটা দূরেই দৌড় শেষ হয়েছিল বিজেপির। এই আবহে প্রাথমিক ভাবে মেয়র নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার কথা জানিয়েছিল বিজেপি। তবে পরবর্তীতে গেরুয়া শিবির জানায়, তারা মেয়র নির্বাচনে অংশ নেবে। প্রসঙ্গত, বিগত ১৫ বছর ধরে দিল্লি পুরনিগম দখলে রয়েছে বিজেপির। এতবছর অবশ্য দিল্লি পুরনিগম তিন ভাগে বিভক্ত ছিল। ২০১২ সালের পর এই প্রথম ফের অভিবক্ত দিল্লি পুরনিগমের ভোট হয়। আর এই প্রথম পুরনির্বাচনে বিজেপিকে পিছনে ফেলে দেয় আম আদমি পার্টি। ২৫০ ওয়ার্ডের দিল্লি পুরসভায় আম আদমি পার্টি জিতেছে ১৩৪টি ওয়ার্ড। বিজেপির ঝুলিতে গিয়েছে ১০৪টি ওয়ার্ড। এদিকে লেফটেন্যান্ট গভর্নর ১০ জনকে মনোনীত করেছেন।

আরও পড়ুন: সুলতানপুরী কাণ্ডে চাঞ্চল্যকর মোড়, অন্যের হয়ে নিজের মাথায় দোষ নিয়েছেন চালক! কেন?

এদিকে নির্বাচনের পর থেকেই আম আদমি পার্টির তরফ থেকে অভিযোগ উঠে এসেছে যে বিজেপি তাদের কাউন্সিলরদের কিনে নিতে চাইছে। যদিও বিজেপি এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। সঙ্গে আবার এও বলেছে, ‘কাউন্সিলর ধরে রাখার দায়িত্ব আম আদমি পার্টির।’ এই অভিযোগ, পালটা অভিযোগের মাঝেই আজ মেয়র নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। এজিকে দিল্লির লেফটেন্যান্ট ঘভর্নরের সঙ্গে রাজ্য সরকারের সংঘাত এতে ইন্ধন দিয়েছে। এই আবহে বিজেপি কাউন্সিলর সত্য শর্মাকে অস্থায়ী স্পিকার মনোনীত করে আম আদমি পার্টির নিশানায় থেকেছেন লেফটেন্যান্ট গভর্নর। মেয়র নির্বাচনের ওপর নজরদারির দায়িত্ব থাকবে সত্য শর্মার ওপরই।

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।