Mamata on Vande Bharat Stone Pelting: ‘বন্দে ভারত নিয়ে ভুয়ো খবর ছড়ানো হয়েছে’, আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি মমতার

Advertisement

যাত্রী পরিষেবা চালুর পরই পরপর দু’দিনে দু’বার পাথ ছোড়ার ঘটনা ঘটেছিল বন্দে ভারত এক্সপ্রেসে। যা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। ঘটনায় এনআইএ তদন্তের দাবি তুলেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। বিজেপি নেতাদের অভিযোগের আঙুল ছিল তৃণমূলের দিকে। তবে আজ রেলের তরফে জানানো হয়, ট্রেনের ওপর পাথর ছোড়া হয়েছিল বিহার থেকেই। এরপরই বিজেপিকে পালটা আক্রমণ শানানোর পথে হেঁটেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই আবহে গঙ্গাসাগর থেকে আজকে মমতা বলেন, ‘রেল নিজেই জানিয়েছে যে বিহারে ঢিল ছোড়া হয়েছিল। অথচ এখানে তিন দিন ধরে ভুয়ো খবর ছড়ানো হয়েছে। মানুষকে ভুল বোঝানোর চেষ্টা হয়েছে। যারা এটা করেছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মমতা এদিন আরও বলেন, ‘ঘটনাটি (পাথর ছোড়া) বাংলায় ঘটেনি, ঘটেছে বিহারে। বিহারের মানুষের ক্ষোভ থাকতেই পারে। গণতন্ত্রে মানুষের ক্ষোভ থাকতেই পারে। তা বলে বিহারকেও অপমান করলে চলবে না। আমি মনে করি তাদেরও (বন্দে ভারত) পাওয়ার অধিকার রয়েছে। বিহারে বিজেপি নেই বলে তারা পাবে না কেন?’

এর আগে পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক একলব্য চক্রবর্তী জানান, মঙ্গলবার বন্দে ভারতে পাথর ছোড়ার ঘটনাটি ঘটেছিল এনজেপি ঢোকার কিছু আগে। বিহার বাংলা সীমান্তে এই ঘটনা ঘটে বেলা ১২টা ৫৫ মিনিট নাগাদ। পাথর ছোড়ার ঘটনায় রাজ্য জিআরপি এবং রাজ্য পুলিশের সঙ্গে তদন্ত শুরু করেছে রেল সুরক্ষা বাহিনী। অভিযুক্তদের খুঁজে বার করে গ্রেফতার করতে ইতিমধ্যেই তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে। উল্লেখ্য, ট্রেনে লাগানো সিসিটিভি ক্যামেরাতেই চিহ্নিত হয়েছে পাথর ছোড়ার ঘটনায় অভিযুক্তরা। মঙ্গলবার দুপুর ১টা ২০ নাগাদ নিউ জলপাইগুড়িগামী ট্রেনকে লক্ষ্য করে পাথর ছোড়া হয় বলে অভিযোগ। পাথরের আঘাতে ট্রেনের জানলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের সি-৩ এবং সি-৬ কামরার জানলা ক্ষতিগ্রস্ত হয় এই হামলায়। রেল সূত্রে খবর, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হাওড়াগামী ট্রেনটি মালদা টাউন স্টেশনে ঢুকলে ইন্সপেকশনের সময় কাচের চিড় নজরে আসে। আরপিএফের সামসি পোস্টে একটি অভিযোগ দায়ের হয়। এর আগে এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় হাওড়াগামী বন্দে ভারত এক্সপ্রেস পাথর ছোড়া হয় বলে অভিযোগ। মালদার কুমারগঞ্জ এলাকায় এই হামলা হয় বলে জানায় রেল পুলিশ। পাথরের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় সি-১৩ কারমার একটি দরজা।

এদিকে মঙ্গলবারের ঘটনা নিয়ে রেলের বিবৃতির পর বিজেপিকে আক্রমণ শানিয়ে তৃণমূলের দেবাংশু ভট্টাচার্য বলেন, রাজ্যের শাসক দলকে বদনাম করতেই এতদিন মিথ্যাচার চালাচ্ছিল গেরুয়া শিবির। রাজ্য তৃণমূলের মুখপাত্র তথা তৃণমূলের তথ্যপ্রযুক্তি সেলের প্রধান দেবাংশু ভট্টাচার্য এই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে লেখেন, ‘পূর্ব রেলের অধিকর্তা স্বীকার করে নিলেন বন্দে ভারতে পাথর নিক্ষেপের ঘটনা বাংলার নয়, বিহারের। অর্থাৎ বিজেপি নেতাদের মিথ্যাচার, বাংলার মুখে কালি লাগানোর অপকৌশল ও সাম্প্রদায়িক রাজনীতির মরিয়া চেষ্টা আরও একবার মাঠে মারা গেল! আহা রে!’

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।