ব্যাঙ্কিং প্রতারণার ক্ষেত্রে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ভূমিকা কতটা? আদালতে জবাব দিল RBI

Advertisement

আব্রাহাম থমাস

ব্যাঙ্কের বড় অঙ্কের লোনের অনুমোদনের ক্ষেত্রে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার কোনও ভূমিকা নেই। এনিয়ে হলফনামায় জানিয়েছে রিজার্ভ ব্য়াঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। শীর্ষ আদালতে এনিয়ে জানিয়েছে আরবিআই। গোটা বিষয়টিকে অযৌক্তিক বলে উল্লেখ করেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। ব্যাঙ্কিং প্রতারণা নিয়ে আরবিআইয়ের আধিকারিকদের জড়িয়ে ফেলা হচ্ছে সেই অভিযোগকে কার্যত উড়িয়ে দিয়েছে আরবিআই।

চলতি সপ্তাহে একটি হলফনামায় শীর্ষ আদালতে আরবিআই জানিয়েছে, ব্য়াঙ্কে মোটা অঙ্কের লোন দেওয়ার ক্ষেত্রে সাধারণভাবে ব্যাঙ্কের বোর্ড বা সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট কমিটির উপর দায়িত্ব থাকে। এটা সম্পূর্ণভাবে কমিটি নির্ভর। এটা কোনও বিশেষ কারোর সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করে না। আরবিআইয়ের নমিনি ডিরেক্টরের এনিয়ে ভেটো প্রয়োগের কোনও ক্ষমতা নেই।

এদিকে এনিয়ে একটি জনস্বার্থ মামলা হয়েছিল। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা সুহ্মমণিয়ম স্বামী ও অ্য়াডভোকেট সত্য সাভারবাল আদালতে এনিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। সিবিআই কেন একাধিক ব্যাঙ্কিং প্রতারণা সংক্রান্ত ব্যাপারে তদন্তকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইছে না তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন।

আরবিআই সোমবার হলফনামায় জানিয়েছে, যে কোনও তদন্তকারী সংস্থার সবদিক বিচার করেই তদন্তকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া ও আইন অনুসারে পদক্ষেপ নেওয়া দরকার। যে সমস্ত স্ক্যামের কথা উল্লেখ করা হয়েছে তার বেশিরভাগটাই সিবিআই বা ইডির তদন্তের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করা রয়েছে। তবে এক্ষেত্রে আবেদনকারীরা তদন্তের গতিপ্রকৃতি সম্পর্কে দিক নির্দেশ করে দিতে পারেন না।

বিচারপতি বিআর গাভাই ও বিক্রম নাথ বুধবার এই জনস্বার্থ মামলাটি সম্পর্কে শুনেছেন। এরপর তাঁরা আরবিআইয়ের হলফনামা সম্পর্কে উত্তর দিতে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা সুহ্মমণিয়ম স্বামীকে তিন সপ্তাহ পর্যন্ত সময় দিয়েছেন।

এদিকে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা সুহ্মমণিয়ম স্বামী জানিয়েছেন, প্রতি ব্যাঙ্কে আরবিআইয়ের একজন নমিনি ডিরেক্টর আছেন। কিন্তু কোনও তদন্তে তাঁকে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে না। কিন্তু তিনি প্রতিটি সিদ্ধান্ত অনুমোদনের পরিকল্পনার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা নিয়ে থাকেন।

এদিকে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া তার হলফনামায় উল্লেখ করেছে, ১২টি পাবলিক সেক্টর ব্যাঙ্কে কেন্দ্রীয় সরকার ডিরেক্টর মনোনীত করে। এর সঙ্গেই আরবিআই কিছু প্রাইভেট সেক্টর ব্যাঙ্ক ও প্রাথমিক (শহর) সমবায় ব্য়াঙ্কে অতিরিক্ত ডাইরেক্টর নিয়োগ করে থাকে। সেক্ষেত্রে আরবিআইয়ের মনোনীত ডাইরেক্টরদের ব্যাঙ্কের রোজকার কাজে হস্তক্ষেপ করার কোনও ব্যাপার থাকে না। কোনও লোন স্যাংশনের ক্ষেত্রে পুরোপুরি ব্যাঙ্ক ম্যানেজমেন্টের ব্যাপার থাকে। আরবিআইয়ের নয়।

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।