সৌজন্য রক্ষায় ‘লেডি কিম’-এর পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করলেন ‘মিরজাফর’

Advertisement

বিধানসভায় সংবিধান দিবস পালনের মধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীর বিরোধী দলনেতাকে তাঁর ঘরে আমন্ত্রণ জানানো কি নিছকই সৌজন্য? শুক্রবার দুপুরে শুভেন্দু – মমতা সাক্ষাতের পর থেকেই উঠছিল সেই প্রশ্ন। জল্পনা চলছিল, মমতার এই সৌজন্যের পিছনে রয়েছে রাজনৈতিক কৌশল। সাক্ষাৎ শেষে দুপক্ষই সেই সম্ভাবনার কথা অস্বীকার করলেও বেলা গড়াতেই সত্যি হল আশঙ্কা। সূত্রের খবর, বিরোধী দলনেতার সামনেই বিজেপি বিধায়ক অশোক লাহিড়ীকে মন্ত্রিত্বের প্রস্তাব দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এমনকী যাঁকে ‘লেডি কিম’ বলে লাগাতার সম্মোধন করেন শুভেন্দু, তাঁকে পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করেছেন তিনি।

সৌজন্যের আড়ালে রাজনীতির চাল মমতার কাছে নতুন কিছু নয়। এদিনও তেমনই কিছু ঘটে থাকবে বলে গুঞ্জন চলছিল। শুক্রবার যখন শুভেন্দুকে মমতা আমন্ত্রণ জানান তখন তাঁর সঙ্গে ছিলেন অগ্নিমিত্রা পাল, অশোক লাহিড়ী ও মনোজ টিগ্গা। মুখ্যমন্ত্রীকে পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করেন শুভেন্দু ও অগ্নিমিত্রা। এর পর মুখ্যমন্ত্রী বলেন, অনেক দিন পর এত কাছে এলি। তোর শরীর কেমন? বাবা কেমন আছেন? এর পরই অশোক লাহিড়ীকে তিনি বলেন, আপনি তৃণমূলে চলে আসুন, অর্থমন্ত্রী করে দেব। একথা শুনে শুভেন্দু বলেন, আর কিছু করতে হবে না। PAC-টা দিয়ে দিন।

শুভেন্দু – মমতা সাক্ষাৎ নিয়ে গুঞ্জন শুরু হতেই বিধানসভায় বিজেপির পরিষদীয় দলের বৈঠক ডাকেন শুভেন্দু। সেখানে সাক্ষাতের ব্যাপারে বিধায়কদের সাবধানে মুখ খুলতে পরামর্শ দেন তিনি। সঙ্গে পরবর্তীতে সরকারের সঙ্গে বিরোধীদের সহযোগিতার বিষয়টি দেখার দায়িত্ব বর্তেছে অশোক লাহিড়ীর ওপর। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে শুভেন্দু বলেন, নিছক সৌজন্য। এর মধ্যে অন্য কিছু নেই। মমতা বলেন, সৌজন্য সাক্ষাতের জন্য ডেকেছিলাম। যাতে সবাই মিলে একসঙ্গে এগিয়ে যেতে পারি।

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।