TMC Meeting: মিঠুনের সভাস্থলেই তৃণমূলের ‘‌জবাবী সভা’‌! বাবুল, মহুয়াই আক্রমণের ফ্রন্টলাইনে

Advertisement

পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রাক্কালে মিঠুন চক্রবর্তীকে নামিয়ে ভাঙা সংগঠনকে চাঙ্গা করতে চায় বিজেপি। তাই বুধবার থেকে শুরু হয়ে গিয়েছে মহাগুরুর জেলা সফর। এই জেলা সফরে গিয়ে তিনি নানা কথা বলছেন। আক্রমণ করছেন শাসকদলকে। আজ, বৃহস্পতিবার তিনি বাঁকুড়া সফরে যাবেন। রাঢ়বঙ্গে সফরে বেরিয়েছেন তিনি। পুরুলিয়া দিয়ে শুরু হয়েছে তাঁর সফর। এই পরিস্থিতিতে একসপ্তাহ পর সেখানেই সভা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। বক্তার তালিকায় রয়েছেন বালিগঞ্জের বিধায়ক বাবুল সুপ্রিয় এবং কৃষ্ণনগরের সাংসদ মহুয়া মৈত্র।

বিষয়টি ঠিক কী হয়েছে?‌ সূত্রের খবর, মিঠুন চক্রবর্তী বিজেপির হয়ে যেখানে সভা করবেন সেখানেই এবার পাল্টা সভা করবে তৃণমূল কংগ্রেস। আপাতত পুরুলিয়া দিয়েই শুরু হবে। তারপর ধাপে ধাপে অন্যান্য জেলায় জবাবী সভা করবে ঘাসফুল শিবির। বুধবার পুরুলিয়ায় মিঠুনের সভার পরই বৈঠকের করেন তৃণমূল কংগ্রেসের পুরুলিয়া জেলা সভাপতি সৌমেন বেলথরিয়া। সেখানেই সিদ্ধান্ত হয়, লধুরকায় মিঠুনের সভাস্থলেই আগামী ১ ডিসেম্বর জনসভা হবে।

ঠিক কী বলছে তৃণমূল কংগ্রেস?‌ এই পাল্টা সভা করার সিদ্ধান্ত নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের পুরুলিয়া জেলা সভাপতি সৌমেন বেলথরিয়া বলেন, ‘সারা বছরই আমাদের নানা কর্মসূচি চলে। আমরা মানুষের সঙ্গে থেকে কাজ করি। আমাদের পাল্টা জনসভা করার দরকার পড়ে না। মানুষ ভিড় করেছিলেন মিঠুন চক্রবর্তীকে দেখার জন্য। আমাদের ব্লক স্তরের সভায় তার চেয়ে বেশি ভিড় হয়।’ বাবুল সুপ্রিয় এবং মহুয়া মৈত্রের জনসভার আগে শনিবারও পুরুলিয়া শহরে তৃণমূল কংগ্রেসের একটি জনসভা রয়েছে। সেখানে হাজির থাকবেন তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক মানস ভুঁইয়া, তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ শতাব্দী রায় এবং যুব নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য।

ঠিক কী বলছে বিজেপি?‌ এই সভার কথা জানতে পেরেও বিশেষ গুরুত্ব দিতে নারাজ বিজেপি। তবে তারা নজর রাখবে বলে সূত্রের খবর। এই বিষয়ে বিজেপির জেলা সভাপতি বিবেক রাঙা বলেন, ‘‌এটা আমাদের জনসভা ছিল না। ছিল কর্মিসভা। এখানে শুধু কর্মীরাই এসেছিলেন। তৃণমূল কংগ্রেস যদি পাল্টা জনসভা করতে চায়, করতেই পারে। তা নিয়ে আমাদের কোনও মাথাব্যথা নেই।’

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।