Delhi Murder: পরিবারের চার সদস্যকে একের পর এক খুন করল যুবক, কারণটা কী?

Advertisement

হিমানি ভান্ডারি

ভয়াবহ ঘটনা দিল্লিতে। পরিবারের চার সদস্য়কে ছুরি দিয়ে নৃশংসভাবে খুন করার অভিযোগ উঠেছে ২৫ বছর বয়সী এক যুবকের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রায় চার ঘণ্টা ধরে এই হত্যালীলা চালায় ওই যুবক। মাস কয়েক আগে ড্রাগ রিহ্য়াব থেকে বাড়ি ফিরেছিলেন তিনি। ৭৫ বছর বয়সী ঠাকুমার কাছ থেকে তিনি টাকা চেয়েছিলেন। কিন্তু তিনি দিতে চাননি। তারপরই এই কাণ্ড!

দক্ষিণ পশ্চিম দিল্লির ঘটনা। পুলিশ ইতিমধ্যেই কেশব সাইনি নামে যুবককে গ্রেফতার করেছে। ভাইপো কুলদীপ সাইনি এনিয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

পরিবারের দাবি, মাঝেমধ্যেই বাড়ি থেকে উধাও হয়ে যেত ওই যুবক। গত ১০ বছর ধরে তিনি ড্রাগে আসক্ত। এবারও ১৯দিন পরে ফিরে এসেছিলেন। বাড়ি ফিরেই মায়ের সঙ্গে ঝগড়া শুরু করে দিয়েছিলেন। এরপরই টাকার দাবি করতে থাকে। এরপর বেরিয়ে যায়।

এরপর বাড়ি ফিরে এসে দেখে ঠাকুমা ঘরে রয়েছেন। তার কাছে পয়সা চাইলেও তিনি দিতে পারেননি। এরপরই ছুরি দিয়ে তাকে খুন করে বলে অভিযোগ। এরপর বডিটিকে উপুড় করে রেখে অপেক্ষা করা শুরু করে।

বাবা সাড়়ে সাতটা নাগাদ ফিরলে আবার ছুরি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে সে। তাকেও খুন করে বাথরুমে রেখে আসে। এরপর মা দর্শনা ফিরে এসে দেখেন স্বামীর দেহ পড়ে রয়েছে বাথরুমে। রাত ৯টা নাগাদ মাকেও খুন করে ছেলে। এরপর বোন উর্বশীর জন্য় অপেক্ষা। আধ ঘণ্টা পরে বোন ফিরলে কেশব তাকেও ছুরি দিয়ে আঘাত করে। তার চিৎকারে নীচের তলা থেকে ছুটে আসেন কুলদীপ। কেশবকে এরপর ধরে ফেলে পুলিশ।

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।