Hijab Row: হিজাব-নামাবলী বিতর্ক নয়, শুরু হোক পরীক্ষা চাইছে ধুলাগড়ি আদর্শ স্কুলের পড়ুয়ারা

Advertisement

হিজাব ও নামাবলীকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে অশান্তির জেরে বন্ধ হয়ে গিয়েছে হাওড়ার ধুলাগড়ি আদর্শ বিদ্যালয়। পরীক্ষা চলাকালীর স্কুল বন্ধ হয়ে যাওয়া হতাশ পডুয়ারা। তারা চাইছে অবিলম্বে স্কুল খুলে শুরু হোক পরীক্ষা। আগামী শনিবার স্কুল কৃর্তপক্ষ একটি বৈঠক ডেকেছেন। সেই বৈঠকে স্কুল খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

মঙ্গলবার স্কুলে নামাবলী জড়িয়ে ঢোকে দু’জন ছাত্র। তার পরই পরিস্থিতি উতপ্ত হয়। ওই ছাত্রদের অভিযোগ ছিল বেশ কিছু দিন ধরে স্কুলের একদল ছাত্রী হিজাব পরে আসত। শিক্ষকদের নিষেধ সত্ত্বেও তারে আসা বন্ধ করেনি। এরই প্রতিবাদে তারা নামাবলী পরে স্কুলে আসে। এর পরই দু’পক্ষের মধ্যে বচসা শুরু হয়। বচসা থেকে শুরু হয় হাতাহাতিও। স্কুল কর্তৃপক্ষ পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

বুধবারও এলাকায় মোতায়েন ছিল পুলিশ। স্কুলের পড়ুয়ারা যেহেতু আশেপাশের বাসিন্দা তাই তাদের কেউ কেউ সকাল থেকেই স্কুলে আশপাশে ভিড় করেছে। অষ্টম শ্রেণির এক পডুয়ার কথায় ,’পরীক্ষা চলাকালীন হঠাৎ করে এই অশান্তির জন্য স্কুল বন্ধ হয়ে গেল। আমরা পরীক্ষা দিতে পারলাম না।’ একই আক্ষেপ একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীর গলাতেও।

কিন্তু কেন হঠাৎ করে এমন অশান্তির পরিবেশ তৈরি হল? বিজেপির মণ্ডল সভাপতি (সাঁকরাইল ২) পলাশ হাজরার দাবি, ‘স্কুলে হিজাব পরে যাওয়া একটা চক্রান্ত। স্কুলের পোশাক পরে আসবে না তা কী করে হয়।’ তবে এই চক্রান্তের অভিযোগ মানতে নারাজ স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান তাহেরা মোল্লা লস্কর। তিনি বলেন, ‘ওই স্কুলে এর আগে কোনও দিন অশান্তি হয়নি। এই প্রথম হল। দু’দল পড়ুয়াদের মধ্যে অশান্তি। এর মধ্যে কোনও রাজনীতি নেই। এখন এলাকা যথেষ্ট শান্ত।’

পরীক্ষা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আর ক’টা দিন দেখি। পরিস্থিতি একেবারে স্বাভাবিক হলে আমরা স্কুল কর্তৃপক্ষকে পরীক্ষা নিতে অনুরোধ করব।’ স্কুলের ভারপ্রাপ্ত শিক্ষক অরিন্দম ব্যানার্জির সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তাঁকে ফোনে পাওয়া যায় নি।

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।