সোনার দোকানে চুরির একটি মামলাতে অস্বস্তিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিক। গত কয়েকদিন আগেই এই মামলাতে তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে আলিপুরদুয়ার আদালত।

Advertisement

 নোংরা রাজনীতি করা হচ্ছে
Advertisement

নোংরা রাজনীতি করা হচ্ছে

যা নিয়ে চরম অস্বস্তিতে বিজেপি! যদিও রাজনৈতিক সুবিধা নেওয়ার জন্যেই নোংরা রাজনীতি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের। যদিও এই অবস্থায় অবশেষে মুখ খুললেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিক। তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন, আইনকে যথেষ্ট সন্মান করি। তবে বিশেষ ভাবে এই জিনিসটাকে গুরুত্ব দিতে নারাজ কেন্দ্রীয়মন্ত্রী। এক সর্বভারতীয় বাংলা সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী নিশীথ জানিয়েছেন, রাজনীতিতে মিথ্যা মামলা তো হয়, এমনকি বিভিন্ন মামলা হয়। এমনকি যারা বলছেন তাঁদের নামেও মামলা রুজু করা হয়েছে বলে দাবি বিজেপি নেতার। তবে আইনকে সবাই সম্মান করে। আমিও করি। ফলে আইন যেভাবে বলবে সেভাবেই মেনে চলব বলে দাবি করেছেন সাংসদ।

 জমি ছাড়তে নারাজ শাসকদল তৃণমূল।

জমি ছাড়তে নারাজ শাসকদল তৃণমূল।

তবে বিষয়টিকে নিয়ে এখনই জমি ছাড়তে নারাজ শাসকদল তৃণমূল। একদিকে যখন বিজেপি নিয়োগ দুর্নীতি সহ একাধিক ইস্যুতে পথে নামছে অন্যদিকে নিশীথ প্রামাণিকের বিষয়টিকে নিয়ে লাগাতার পথে নামছে তৃণমূল। ইতিমধ্যে কয়েক দফাতে মিছিল করেছে স্থানীয় জেলা নেতৃত্ব। সেখান থেকে একদিকে নিশীথের গ্রেফতারের দাবি তোলা হয় অন্যদিকে পদত্যাগের দাবিও জানানো হয়। স্থানীয় এক তৃণমূল নেতার কথা, নিশীথ প্রামাণিক আমাদের লজ্জা। ফলে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন অংশে এবার তৃণমূলের তরফে মিছিল এবং সভার ডাক দেওয়া হয়েছে বলেও জানা যাচ্ছে।

সোনার দোকানে চুরির ঘটনা ঘটে।

সোনার দোকানে চুরির ঘটনা ঘটে।

বলে রাখা প্রয়োজন, আলিপুরদুয়ারে দু’টি সোনার দোকানে চুরির ঘটনা ঘটে। ২০০৯ সালে এই ঘটনা ঘটে। আর সেই ঘটনাতে নাম জড়ায় নিশীথ প্রমানিকের। তবে সাংসদ হিসাবে নিশীথ জয় পাওয়ার পরেই মামলা দু’টি উত্তর ২৪ পরগনার বারাসতে সাংসদ-বিধায়কদের আদালতে শুনানি হয়। যদিও পরবতীকালে এই মামলা ফিরে আসে ফের আলিপুরদুয়ার আদালতে। তবে গ্রেফতারি পরোয়ানা ঠেকাতে কি ব্যবস্থা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নেন সেদিকেই নজর সবার।

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।