শূন্য পদে নিয়োগ করে যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দিন, কর্মীবর্গ আধিকারিক সংস্কার দফতরে কাতর আবেদন চাকরি প্রার্থীদের | group d job seekers in protest for their job

Advertisement

West Bengal

oi-Souptik Banerjee

Google Oneindia Bengali News

চাকরি নিয়ে গ্রুপ ডি কর্মীরাব কনে সদুত্তর পাবেন এই বিষয় নিয়ে ফের সুর চড়ালেন প্রতিবাদিরা। এই দলের নেতৃত্বে আছেন আশিস খামরাই, শুভেন্দু ধারা এবং বিশ্বজিত সাউ।

শূন্য পদে নিয়োগ করে যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দিন, কর্মীবর্গ আধিকারিক সংস্কার দফতরে কাতর আবেদন চাকরি প্রার্থীদের

আশিস খামরাই বলেন, “আমরা গ্রুপ-ডি নিয়োগ পরীক্ষা ২০১৭ এর বিগত ১৮ অগাস্ট ২০১৮ তারিখে প্রকাশিত চূড়ান্ত মেধাতালিকায় স্থান পাওয়া ওয়েট লিস্টেড চাকরিপ্রার্থী । আমরা একাধিকবার প্রথমে ডব্লিইউবিডিজিআরবি এবং পরবর্তীকালে পি আন্ড এআর দপ্তরে আমাদের ওয়েটিং লিস্টের মেধাক্রম, সংশ্লিষ্ট পরীক্ষায় মোট প্রাপ্ত নম্বর, মোট ওয়েট লিস্টেড প্রার্থীর সংখ্যা, প্রার্থী নিয়োগের পর পড়ে থাকা শুন্য পদের তথ্য জানতে উক্ত দপ্তরে যোগাযোগ করি । কিন্তু কোনও দপ্তর থেকে কোনোরকম তথ্য বা সদুত্তর আমরা পাইনি ।”

শুভেন্দু ধারা বলেন যে, “পরবর্তীকালে আমরা এর মাধ্যমে উক্ত তথ্য জানতে আবেদন করি এবং এর দপ্তর তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে নোটিশ দিয়ে অবগত করেন যে তারা ওয়েটিং লিস্টে থাকা প্রার্থীদের সমস্ত তথ্য প্রকাশ করবেন । কিন্তু আজ প্রায় তিন বছর অতিক্রান্ত হওয়ার পরে আমরা এর থেকে কোনো রকম তথ্যের প্রত্যুত্তর পাই নি।”

এই প্রসঙ্গে উল্লেখ্য, সফল প্রার্থীদের দুটি চূড়ান্ত মেধা তালিকা প্রকাশ করে এবং তাতে যোগ্য প্রার্থী না পাওয়ায় ৫৭৮ শূন্য পদ অপূর্ণ থেকে যায় । রিক্রুটমেন্ট নোটিফিকেশন অনুযায়ী যোগ্যপ্রার্থী না পেলে সেই শুন্য পদে ২০৭ প্রার্থীদের নিয়োগ করে বিজ্ঞাপিত ৬০০০ শৃন্য পদ পূরণ করার কথা ছিল । কিন্তু বহুবার কাতর অনুরোধ সত্বেও তা করা হয়নি। পরবর্তীকালে, নন জয়নিং শন্যপদে কিছু সংখ্যক চাকরীপ্রার্থীদের নিয়োগ করা হলেও তা সম্পর্কে কোনো তথ্যই আমরা পাইনি এবং সেই নিয়োগে যথেষ্ঠস্বচ্ছতার অভাব থেকে যায়।”

বিশ্বজিত সাউ বলেন, “বর্তমান পশ্চিমবঙ্গ সরকার এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে বারবার আবেদন করে, শান্তিপূর্ন পথসভা, সোশ্যাল মিডিয়া, নিউজ মিডিয়া, প্রিন্ট মিডিয়ায় বিভিন্ন সৃষ্টিশীল এবং পরিবেশ রক্ষাকারী কর্মসূচীর মাধ্যমে আমরা মানবিক দৃষ্টি আকর্ষণে ব্যর্থ হই, বঞ্চিত হই এবং কোনোরূপ সমাধান আমরা আজও পাইনি বরং ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে কলকাতায় গান্ধী মূর্তির পাদদেশে শাস্তিপূর্ন সমাবেশ এবং সচ্ছতার সাথে নিয়োগের দাবি জানালে আমাদের ১৪৫ জন চাকরী প্রার্থীকে গ্রেফতার করে লালবাজার সেন্ট্রাল লকআপে আটক করা হয়।

অবলুস্তি ঘোষনা করাহয়, যা আমাদের কাছে একে বারে অপ্রত্যাশিত। মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারা গঠিত রিকৃরুটমেন্ট বোর্ড সম্পূর্ণ রিক্রুটমেন্ট প্রসেস কমপ্লিট না করেই কি ভাবে তা অবলুপ্ত হলো। আমরা এখনও ওয়েটিং মেরিট লিস্টেড রয়েছি। এই বিষয়গুলি আলোচনা পূর্বক সমাধানের জন্য এবং স্বচ্ছতার সাথে নিয়োগ প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করতে আপনার মানবিক দৃষ্টি প্রার্থনা করছি । আমাদের অনুরোধ, অনুগ্রহ করে আমাদের সকল ওয়েট লিস্টড চাকরি প্রার্থীদের প্রতি মানবিক দৃষ্টি নিয়ে সমত্ত নন-জয়নিং শৃন্যপদে নিয়োগ করে আমাদের যন্ত্রণা দূর করুন।”

English summary

group d job seekers protest

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।