ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ODI-এ ৯৪ আউট হতেই ধাওয়ানের গড়া অকাঙ্খিত রেকর্ড ছুঁয়ে ফেললেন স্মিথ

Advertisement

অস্ট্রেলিয়া বনাম ইংল্যান্ডের মধ্যকার তিন ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটি শনিবার সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এই ম্যাচে টস জিতে অস্ট্রেলিয়া প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ছিল এবং ইংল্যান্ডকে ২৮১ রানের লক্ষ্য দিয়ে ছিল। স্টিভ স্মিথের ৯৪ রানের ইনিংসটি অস্ট্রেলিয়াকে এই লক্ষ্যে পৌঁছাতে সাহায্য করার জন্য সবচেয়ে বড় অবদান রাখে। স্টিভ স্মিথ এটির সঙ্গে একটি বড় রেকর্ড তৈরি করেছিলেন এবং বড় জায়ান্টদের পিছনে ফেলে দিয়েছিলেন।

আসলে,প্রথম ম্যাচ থেকেই শক্তিশালী ফর্মে থাকা স্টিভ স্মিথ এই ম্যাচেও নিজের ছন্দ বজায় রেখেছেন। তিনি ৯৪ রানের একটি ইনিংস খেলেন। মাত্র ছয় রানের জন্য শতরান হাতছাড়া করেন তিনি। এর ফলে নার্ভাস নাইনটিনে আউট হয়ে যান স্মিথ। এরফলে শিখর ধাওয়ানের রেকর্ডকে ছুঁয়ে ফেলেন তিনি। কারণ একটি দেশের বিরুদ্ধে ক্রিকেটের তিনটি ফর্ম্যাট অর্থাৎ, টেস্ট, একদিনের ক্রিকেট ও টি টোয়েন্টি ক্রিকেটে নার্ভাস নাইনটিনে আউট হওয়া ক্রিকেটার হিসাবে নাম লেখালেন স্মিথ।

আরও পড়ুন… সে এখনও T20I তে সুযোগ পাননি দেখে অবাক হই! জানেন কার কথা বললেন দীনেশ কার্তিক?

এর আগে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টেস্ট, ওডিআই এবং টি টোয়েন্টিতে নার্ভাস নাইনটিনে আউট হয়েছিলেন। ধাওয়ানের পাশে জায়গা করলেন স্মিথ। তবে অজি তারকা এই রেকর্ড করলেন ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে। ধাওয়ান যেখানে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে একদিনের ক্রিকেটে ৯৪ ও ৯১ রানে আউট হয়েছিলেন। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টেস্টে ৯৪ রান ও টি টোয়েন্টিতে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ৯০ রানে আউট হয়েছিলেন ভারতের ওপেনার শিখর ধাওয়ান। অন্যদিকে স্টিভ স্মিথ টেস্টে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৯২ ও ৯৩ রান করে আউট হয়েছিলেন। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি টোয়েন্টিতে ৯০ রান করে আউট হয়েছিলেন স্মিথ। একদিনের ক্রিকেটে এবার ৯৪ রানে আউট হয়ে ধাওয়ানের রেকর্ডকে ছুঁয়ে ফেললেন স্মিথ।

আরও পড়ুন… ৬ রানের জন্য স্মিথের শতরান হাতছাড়া, ইংল্যান্ডকে ৭২ রানে হারিয়ে সিরিজ দখল করল অস্ট্রেলিয়া

এদিন ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৯৪ রান করার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৪,০০০ রান পূর্ণ করার জন্য নবম অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান হলেন স্টিভ স্মিথ। এর মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ার দ্রুততম ১৪,০০০ রান করা ব্যাটসম্যানও হয়েছেন স্মিথ। একজন বোলিং অলরাউন্ডার হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করা স্টিভ স্মিথের জন্য এই অবস্থানে পৌঁছানো অনেক বড় প্রাপ্তি।

ম্যাচের কথা বললে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ডেভিড ওয়ার্নার ও ট্রেভিস হেডের উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়ান দল। এরপর তিন নম্বরে নামা স্টিভ স্মিথ এবং চার নম্বরে নামা মার্নাস ল্যাবুশান ইনিংস সামলেছিলেন। তারা ১০১ রানের জুটি গড়েছিলেন। মার্নাস ল্যাবুশান ৫৫ বলে ৫৮ রান করেন। লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ড ২০৮ রান করে,যার মধ্যে স্যাম বিলিংস (৭১) সবচেয়ে বেশি অবদান রাখেন। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে মিচেল স্টার্ক ও অ্যাডাম জাম্পা চারটি করে উইকেট শিকার করেন।মিচেল স্টার্কের পেস বোলিংয়ের সামনে ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা অসহায় হয়ে যান।ম্যাচে আট ওভার বল করে ৪৭ রানে চার উইকেট নেন তিনি। ক্যাঙ্গারুদের এই বোলার ৫.৮৮ ইকোনমিতে বল করেছিলেন। তিনি একটি মেডেন ওভারও নিয়েছিলেন। দুর্দান্ত বোলিং পারফরম্যান্সের জন্য’প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ’ও নির্বাচিত হন মিচেল স্টার্ক।

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।