ফেসবুকে প্রার্থনা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ট্রোল, জবাব দিলেন ঋত্বিক…| Ritwick Chakraborty react on trolling after his Facebook post

Advertisement

Ritwick Chakraborty, Aindrila Sharma, জি ২৪ ঘণ্টা ডিজিটাল ব্যুরো : ভেন্টিলেশনে ঐন্দ্রিলা শর্মা। ‘ওর জন্য প্রার্থনা করুন’, লিখেছিলেন ঐন্দ্রিলার ভালোবাসার মানুষ সব্যসাচী চৌধুরী। সে অনুরোধ ফেলেননি অনুরাগীরা। অনেককেই ফেসবুকে ঐন্দ্রিলার আরোগ্য কামনায় ফেসবুক পোস্ট করেছেন। তবে এসবেরই মাঝে বুধবার অভিনেতা ঋত্বিক চক্রবর্তীর একটি পোস্টে ছন্দ পতন হয়। ঋত্বিক লিখেছিলেন,  ‘অনেককেই দেখি নানা কারণে ফেসবুকে প্রার্থনা করেন। কিন্তু যার কাছে প্রার্থনা করা হয়, তিনি ফেসবুক করেন তো’। আর ঋত্বিকের এমন কথাতেই বেজায় চটেছিলেন নেটপাড়ার একাংশ। তীব্র নিন্দার মুখে অবশেষে জবাব দিলেন ঋত্বিক।

কী বললেন অভিনেতা?

ঋত্বিক চক্রবর্তী জানিয়েছেন, ‘কাল একটা পোস্ট করেছিলাম,পরে কমেন্ট দেখে বুঝলাম অনেকেই লেখাটাকে ঐন্দ্রীলার সঙ্গে সম্পর্কিত বলে মনে করেছেন। আমার বিপদের দিনের জন্য অপেক্ষা করবেন বলেও বলেছেন। পোস্টটা করার সময় ঐন্দ্রীলার কথা মাথায় ছিলনা। পরে বুঝলাম থাকলে ভালো হতো৷ যাদের দুঃখ দিলাম, দুঃখিত। মার্জনা করবেন। আসলে ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করার মাধ্যম হিসাবে ফেসবুকের পাবলিক পোস্ট কেমন? বা প্রার্থনার ডকুমেন্টেশান রেখে দেওয়ার তাগিদ অনেকের মধ্যে অনেক দিন ধরেই দেখছি বলে কথা গুলো মাথায় এসেছে। ঐন্দ্রীলার জন্য সবাই মন থেকে প্রার্থনা করছেন,করবেনও। চাইলে ফেসবুকেও করুন। আমাদের সবার চাওয়া সবাই তার জীবনের স্বাভাবিক ছন্দে ফিরে আসুক।’ অভিনেতার এই পোস্টটিও অনেকেই লাইক করেছেন। 

আরও পড়ুন-‘ঐন্দ্রিলার সুস্থতা কামনায় ফেসবুকে পোস্ট করে কী হবে’! মন্তব্যে নিন্দার মুখে ঋত্বিক…

    

আরও পড়ুন-‘এত আনন্দ আয়োজন, সবই বৃথা আমায় ছাড়া’, চোখে জল আনল ঐন্দ্রিলার এই নাচ

‘অনেককেই দেখি নানা কারণে ফেসবুকে প্রার্থনা করেন। কিন্তু যার কাছে প্রার্থনা করা হয়, তিনি ফেসবুক করেন তো’,  বুধবার ঋত্বিকের এই পোস্টের নিচে অনেকেই নানান মন্তব্য করেছিলেন। কেউ লিখেছেন, ‘প্রার্থনা, এবং positive প্রার্থনা সবসময় শুধু কাউকে উদ্দেশ্য করে তো হয় না গো.. মনের ইচ্ছেটাও তো প্রার্থনার অঙ্গ।’ কারোর কথায়, ‘অনেক কিছুই হয়তো যুক্তিহীন তবু যুক্তির বাইরেও কিছু আছে সেই বিশ্বাসেই হয়তো করে থাকি আমরা। আর সম্মিলিত প্রার্থনা ও শুভেচ্ছার একটা ভাল দিক নিশ্চয়ই আছে। ডকুমেন্ট রেখে পৃথিবীকে জানিয়ে প্রার্থনা করা cheesy মনে হতেই পারে তবে এক একজন মানুষের আবেগের প্রকাশ এক একরকম। তাই একজন প্রকাশ করেননা তাই তার আবেগ নিষ্কলুষ আর একজন দেখিয়ে ফেলেন তাই তার আবেগ সস্তা হয়ে যায় হয়তো অনেকের কাছে।’ কারোর মন্তব্য, ‘চোর, ডাকাত, ধর্ষক, মিথ্যাবাদী, প্রবঞ্চক, শিক্ষক, ছাত্র, নেতামন্ত্রী, শিল্পী, ব্লগার – সবাই যদি বেশে বা ছদ্মবেশে ফেসবুকেই ঘুরে বেড়ান তাহলে তিনি কেন নন?’ কেউ আবার ঐন্দ্রিলা শর্মার প্রেমিক সব্যসাচী চৌধুরীর প্রসঙ্গ টেনে এনে লিখেছেন, ‘সব্যসাচী চৌধুরী ফেসবুকের মাধ্যমে আবেদন করেছেন, বহু মানুষ তাতে সাড়াও দিয়েছেন, আশাকরি সব্যসাচী সেটা দেখেছেন।এত মানুষের সম্মিলিত প্রার্থনা, আবেগ, ভালোবাসা যদি তাঁকে সামান্যতম মনের জোর দেয় অসুবিধা কোথায়। আপনি একজন প্রতিভাবান অভিনেতা, মস্তিস্ক দিয়ে অভিনয়টা করেন, এমন আলটপকা মন্তব্য কে যদি ‘ সারকাজম ‘ বলেও ধরে নিই, তাহলে সেটা করার জন্য এটা কি উপযুক্ত সময়…!’  ঋত্বিকের এই পোস্টে এমনই নানান মন্তব্য উঠে এসেছে। যদিও কেউ কেউ আবার ঋত্বিক চক্রবর্তীকেই সমর্থন করেছেন। এই পোস্টের নিচে অভিনেত্রী বিদীপ্তা চক্রবর্তী নিজের মতামত জানিয়ে লিখেছেন, ‘আমার কাছে প্রার্থনার সমার্থক মন থেকে চাওয়া। বেশি বেশি করে মন থেকে চাওয়া।’ অভিনেত্রী ঊষসী চক্রবর্তী খানিকটা সহমত পোষণ করে লিখেছেন, ‘এটা আমারও প্রশ্ন’।

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App)

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।