৫০০ টাকার টিকিট কেটেও পাতে পড়ল না ইলিশ, বারাসতে কাউন্সিলরকে ঘিরে বিক্ষোভ

Advertisement

নাচ হল, গান হল, কিন্তু ৫০০ টাকার টিকিট কেটে ইলিশ উৎসবে গিয়ে ইলিশ খাওয়া হল না বারাসতবাসীর। ফলে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী জনতা। যাকে ঘিরে শুরু হল চরম বিশৃঙ্খলা। ঘটনাকে কটাক্ষ করে বিরোধীরা বলছেন, ‘ইলিশ চোর তৃণমূল।’

মঙ্গলবার বারাসত অ্যাসোসিয়েশনের মাঠে আয়োজন হয়েছিল ইলিশ উৎসবের। উদ্যোক্তা ছিলেন স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলর সুমিত কুমার সাহা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী রথীন ঘোষ, বিধায়ক চিরঞ্জিত। প্রায় মাসখানের জুড়ে শহরজুড়ে প্রচার হয়েছে অনুষ্ঠানের। ৫০০ টাকার টিকিট কাটলেই পাতে পড়বে ইলিশের নানা পদ। সে লোভ কি আর সামলানো যায়? অনেকেই কাউন্সিলরের আশ্বাসে কেটেছিলেন টিকিট। কিন্তু মঙ্গলবার অনুষ্ঠানে এসে দেখেন সে সবই কথার কথা? কোথায় ইলিশ?

এদিন ইলিশ উৎসবে প্রতিশ্রুতি মতো ইলিশের পদ রাখা হয়নি বলে অভিযোগ অংশগ্রহণকারীদের। তাদের অভিযোগ, টিকিট বিক্রির সময় যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল এখানে এসে দেখি তার কিছুই নেই। যারা শুরুর দিকে এসেছিলেন তারা কয়েক টুকরো ইলিশ পেলেও পরের দিকে বাড়তে থাকে ভিড়। অপেক্ষা করতে বলা হয় অংশগ্রহণকারীদের। তার পরও অনেকে ইলিশ পাননি বলে অভিযোগ।

এর পরই উদ্যোক্তাদের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফেটে পড়েন স্থানীয়রা। উদ্যোক্তাদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা। খবর পেয়ে আসে পুলিশ। তারা পরিস্থিতি শান্ত করেন। অভিযোগ, অনেকেই না খেয়ে ফিরেছেন অনুষ্ঠান থেকে।

এই নিয়ে স্থানীয় এক সিপিএম নেতা বলেন, মিথ্যে কথা বলে মানুষকে মাতিয়ে রাখাই তৃণমূলের রাজনীতি। ইলিশ উৎসবের নামে সারা শহরজুড়ে এমন প্রচার চলেছে যেন কী না কী হবে। শেষে ৫০০ টাকা করে টিকিট কেটেও ভর দুপুরে মানুষ দু’টো না খেয়ে ফিরল। ইলিশ চোর তৃণমূল।

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।