পয়গম্বরের নামে টিপ্পনি, মার ছাত্রকে, বলানো হল আল্লাহ-হু-আকবর, রুজু মামলা: রিপোর্ট

Advertisement

হায়দরাবাদের কলেজের হস্টেলে এক ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ উঠল। ওই ছাত্রকে উলঙ্গ করে মারধর করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। ‘হিন্দুস্তান টাইমস’ গ্রুপের ‘লাইভ হিন্দুস্তান’-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, পয়গম্বর নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করার অভিযোগ ওই ছাত্রকে মারধর করা হয়। সেই সংক্রান্ত একাধিক ভিডিয়োও ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

‘লাইভ হিন্দুস্তান’-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, হায়দরাবাদের একটি বেসরকারি কলেজে আইন নিয়ে স্নাতক স্তরের পড়াশোনা করছেন ওই ছাত্র। পয়গম্বর নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন বলে দাবি করে গত ১ নভেম্বর ওই ছাত্রকে মারধর করা হয় এবং আল্লাহ-হু-আকবর স্লোগান দিতে বাধ্য করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। ওই ঘটনায় হস্টেলের সহপাঠীরাই জড়িত ছিলেন বলে দাবি করা হয়েছে।

সেই সংক্রান্ত একাধিক ভিডিয়োও (কোনও ভিডিয়োর সত্যতা যাচাই করেনি হিন্দুস্তান টাইমস বাংলা) সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। অনেকেই সেই ভিডিয়ো শেয়ার করেছেন। তাতে দেখা গিয়েছে যে একজনকে বেধড়ক মারধর করা হচ্ছে। তাঁকে বিছানায় ফেলে দেওয়া হয়। তারপর হাতের কাছে বসে তাঁকে চেপে ধরার চেষ্টা করতেও দেখা গিয়েছে ভিডিয়োয়। সেইসঙ্গে ভিডিয়োয় দেখা গিয়েছে, একজন পিছনে জোরে-জোরে লাথি মারছে। একজনকে মানিব্যাগ বের করে নিতেও দেখা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: Hyderabad Prophet Remark Row: পয়গম্বর মন্তব্য বিতর্কে রাতে পাথর, সকালে কিছুটা শান্ত হায়দরাবাদ, ধরা হল রাজাকে

‘লাইভ হিন্দুস্তান’-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, র‌্যাগিং বিরোধী একাধিক ধারায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে। তেলাঙ্গানা পুলিশ জানিয়েছে যে ১১ নভেম্বর অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই ছাত্র। অভিযোগপত্রে তিনি বলেছেন, ‘কলেজ ক্যাম্পাসে হস্টেলের ঘরের মধ্যে আমায় শারীরিক ও যৌন নিগ্রহ করা হয়। ১৫ থেকে ২০ জন আমায় মারধর করেছিল।’ তিনি দাবি করেছেন, কয়েকজন মুখে ঘুষি মেরেছিল। লাথি মেরেছিল পেটে। যৌনাঙ্গ স্পর্শ করা হয়েছিল। জোর করে কিছু রাসায়নিক ও পাউডার খেতে বাধ্য করা হয়েছিল বলে দাবি করেছেন ওই ছাত্র।

আরও পড়ুন: Bangladesh Teacher Assault Case: নড়াইলে শিক্ষককে জুতোর মালা পরানোর ঘটনায় বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের

শুধু তাই নয়, ‘লাইভ হিন্দুস্তান’-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই ছাত্র দাবি করেছেন যে অভিযুক্তদের একজন তাঁর মুখে যৌনাঙ্গ ঢুকিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছিল। উলঙ্গ করে মারধর করা হয়েছিল। অভিযুক্তরা বলতে থাকে যে ‘যতক্ষণ না মরে যায়, ততক্ষণ মারধর করা হবে’। নাকেও চোট লেগেছে বলে দাবি করেছেন ওই ছাত্র। সেইসঙ্গে তাঁর দাবি, বিষয়টি কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছেও অভিযোগ জানিয়েছিলেন। তবে বিষয়টি নিয়ে আপাতত কলেজ কর্তৃপক্ষের তরফে কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।