ভুলবশত ছাঁটাই! ফেরত ডাকা হল ট্যুইটারের বহু কর্মীকে

Advertisement

জি ২৪ ঘণ্টা ডিজিটাল ব্যুরো: তার প্রায় ৫০ শতাংশ কর্মী ছাঁটাই করার মাত্র দুই দিন পরেই তাদের ফেরট ডাকছে ট্যুইটার। এলন মাস্কের টুইটার এখন বরখাস্ত হওয়া কয়েক ডজন কর্মীরকে ফের তাদের চাকরিতে ফিরে আসতে বলেছে বলে জানা গিয়েছে। রবিবার প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুসারে, যাদেরকে ফিরে আসতে বলা হয়েছিল তাদের মধ্যে কয়েকজনকে জানানো হয়েছে যে তাদেরকে ‘ভুলবশত’ ছাঁটাই করা হয়েছিল। সূত্র মারফত আরও জানা গিয়েছে যে ম্যানেজমেন্ট এই ভুল উপলব্ধি করার পরে অন্যদের পুনরায় কাজে যোগদান করতে বলা হয়েছে। মনে করা হচ্ছে যে টেসলার সিইওর কল্পনা করা ট্যুইটারের নতুন বৈশিষ্ট্যগুলি তৈরি করার জন্য এই ব্যক্তিদের প্রয়োজন।

সংস্থাটি তার ৫০ শতাংশ কর্মচারীকে বরখাস্ত করারা পরে এই খবর জানা গিয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে সম্পূর্ণ মানবাধিকার দল এবং এথিকাল এআই টিমের দুইজন বাদে বাকি সকলে। জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান ভলকার তুর্ক একটি খোলা চিঠিতে বলেছিলেন যে এই পদক্ষেপ কোনও ‘উৎসাহজনক শুরু’ ছিল না।

সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানির কর্মচারীদের ট্যুইটগুলি থেকেও জানা গিয়েছে যে পণ্য এবং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের কর্মী, সেইসঙ্গে যোগাযোগ, কনটেন্ট কিউরেশন, মানবাধিকার এবং মেশিন লার্নিং নীতির দায়িত্বে থাকা দলগুলিকে ছাঁটাই করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: ট্যুইটারের পরে মেটা! কর্মী ছাঁটাইয়ের পথে ফেসবুক

মাস্কের অধিগ্রহণের পরে, টুইটার খরচ কমানোর প্রয়াসে ইমেলের মাধ্যমে এই সপ্তাহে প্রায় ৩,৭০০ কর্মীকে বরখাস্ত করেছে।

একটি টুইটে মাস্ক বলেছেন যে তার নতুন কেনা কোম্পানির উচ্চ ক্ষতির কারণে কর্মী ছাঁটাই করা হয়েছে। তিনি লিখেছেন, ‘ট্যুইটারের কর্মী হ্রাসের বিষয়ে, দুর্ভাগ্যবশত যখন কোম্পানিটির যখন প্রতিদিন ৪ মিলিয়ন ডলারের বেশি ক্ষতি হয় তখন কোনও বিকল্প নেই’।

 

তিনি আরও দাবি করেন যে চাকরিচ্যুত কর্মচারীরা ‘আইনগতভাবে প্রয়োজনের তুলনায় ৫০ শতাংশ বেশি সেভেরেন্স পেয়েছেন। যদিও অনেক কর্মচারী জানতে পেরেছেন যে ইমেল এবং স্ল্যাকের মতো কোম্পানি-ব্যাপী সিস্টেমগুলিতে অ্যাক্সেস পাওয়ার পরেই তাদের বরখাস্ত করা হয়েছিল।

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App) 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।