বিজেপিতে যোগদান ৫০০ পরিবারের, পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে শক্তি বাড়ল পাহাড়ে, BJP increases power in hill of Darjeeling to join 500 families before Panchayat Election.

Advertisement

জিটিএ ও পুর নির্বাচনে হারের পর বিজেপির লক্ষ্য পঞ্চায়েত
Advertisement

জিটিএ ও পুর নির্বাচনে হারের পর বিজেপির লক্ষ্য পঞ্চায়েত

সাম্প্রতিক অতীতে লোকসভা নির্বাচনে পাহাড়ের মাটিতে গেরুয়া শিবির জয়লাভ করেছে। সে অর্থে দাঁত ফোটাতে পারেনি তৃণমূল। এমনকী ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনেও বিজেপি শেষ হাসি হেসেছে দার্জিলিংয়ে। কিন্তু জিটিএ ও পুর নির্বাচনে বিজেপি হার মেনেছে যথাক্রমে তৃণমূলের বন্ধু দল গোর্খা প্রজাতান্ত্রিক মোর্চা ও হামরো পার্টির কাছে।

বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক পড়ল পাহাড়ে

বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক পড়ল পাহাড়ে

তারপর সামনেই পঞ্চায়েত নির্বাচন। অন্য জেলার সঙ্গে এবার পাহাড়েও বসবে পঞ্চায়েত নির্বাচনের আসর। প্রায় ২২ বছর পর। আর এই নির্বাচনের প্রস্তুতিতে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দার্জিলিংয়ে এসেছেন সাংগঠনিক সভা করতে। সেই সাংগঠনিক সভাতেই বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক পড়ল শনিবার। পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে বিজেপিকে শক্তিশালী করতে চাইছে নেতৃত্ব।

সাংগঠনিক বৈঠক ও যোগদান কর্মসূচি বিজেপির

সাংগঠনিক বৈঠক ও যোগদান কর্মসূচি বিজেপির

শনিবার দার্জিলিংয়ের গোর্খা দুঃখ নিবারক সম্মেলন ভবনে বিজেপির সাংগঠনিক বৈঠক ও যোগদান কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলকে শক্তিশালী করার জন্য যোগদান কর্মসূচি ছিল এই কর্মসূচির প্রধান অঙ্গ। এদিনের কর্মসূচিতে দার্জিলিং জেলার সাংসদ রাজু বিস্ত ও বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার-সহ উত্তরবঙ্গের বেশ কিছু নেতা-নেত্রী উপস্থিত ছিলেন।

দার্জিলিংয়ের প্রায় ৫০০টি পরিবার বিভিন্ন দল ছেড়ে বিজেপিতে

দার্জিলিংয়ের প্রায় ৫০০টি পরিবার বিভিন্ন দল ছেড়ে বিজেপিতে

বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার ও সাংসদ রাজু বিস্তের উপস্থিতিতে দার্জিলিংয়ের প্রায় ৫০০টি পরিবার বিভিন্ন দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। এই যোগদানের পর সুকান্ত মজুমদার বলেন, লোকসভা নির্বাচনে পাহাড়ে আমাদের মাটি শক্তই রয়েছে। পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলকে শক্তিশালী করতেই এই যোগদান পর্বের আয়োজন করা হয়েছিল। তিনি আরও বলেন, “বহু তৃণমূল নেতা বিজেপিতে যোগ দেবার জন্য লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। আমরা ভাবছি তাঁদের নেব কি না। এই লাইন আরও লম্বা হবে।”

পাহাড় নিয়ে প্রতিশ্রুতির বন্যা বিজেপির

পাহাড় নিয়ে প্রতিশ্রুতির বন্যা বিজেপির

এদিন এই বৈঠকে এসে সাংসদ রাজু বিস্ত বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার দার্জিলিং ও আশেপাশের জনজাতির জন্য অনেক কাজ করতে শুরু করেছে। পাহাড়ের প্রতিটি ঘরে ঘরে জল পৌঁছাবে। মানুষের চাকরি হবে। আবাস যোজনার বাড়ি সুন্দর করে দেওয়া হবে। শিলিগুড়িতে রিং রোড, বাগডোগরা বিমানবন্দরের জন্য ১৮০০ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। আন্তর্জাতিকমানের বিমানবন্দর হবে। চার লেনের রাস্তা-সহ ১০ হাজার কোটি টাকা উত্তরবঙ্গের উন্নয়নে দিচ্ছে কেন্দ্র। কিন্তু বহু জায়গায় এই টাকা নষ্ট করছে রাজ্য সরকার।

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।