জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে অজয় এডওয়ার্ডয়ের হামরো পার্টি ছেড়ে অনিত থাপার ভারতীয় গোর্খা প্রজাতান্ত্রিক মোর্চায় যোগ দিলেন দুই জিটিএ সভাসদ প্রমোস্কার ব্লোন ও ভুপেন্দ্র ছেত্রী।

Advertisement

পতাকা তুলে দেওয়া হয়েছে
Advertisement

পতাকা তুলে দেওয়া হয়েছে

যদিও তাদের অনিত শিবিরে যোগ দেওয়ার বিষয়টি প্রায় নিশ্চিতই ছিল। আজ শনিবার তা আনুষ্ঠানিক রূপ পেল। এদিন ওই দুই জিটিএ ( গোর্খাল্যান্ড টেরিটোরিয়্যাল এডমিনিস্ট্রেশন)য়ের সভাসদ প্রমোস্কার ব্লোন ও ভুপেন্দ্র ছেত্রীর হাতে দলীয় পতাকা তুলে দিয়ে দলে স্বাগত জানান ভারতীয় গোর্খা প্রজাতান্ত্রিক মোর্চার সভাপতি অনিত থাপা। পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন কালিম্পংয়ের বিধায়ক রুদেন সাদা লেপচা, দলের সাধারণ সম্পাদক অমর লামা সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

রাজনীতিতে উত্থান হয়েছে হামরো পার্টি

রাজনীতিতে উত্থান হয়েছে হামরো পার্টি

মাত্র কয়েকদিন হয়েছে পাহাড়ের রাজনীতিতে উত্থান হয়েছে হামরো পার্টি। প্রথমবার ভোটের ময়দানে নেমেই দার্জিলিং পুরসভা দখল করে অজয় এডওয়ার্ডয়ের হামরো পার্টি। এরপর জিটিএ নির্বাচনে নেমেও ভালো ফল করে তাঁরা। প্রধান বিরোধী শক্তি হয়ে ওঠে তাঁরা। গত কয়েকদিন আগে থেকেই ভূপেন্দ্র ছেত্রী এবং প্রমোস্কার ব্লোনের দল ছাড়ার জল্পনা তৈরি হয়। আর এরপরেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন অজয়। শুধু তাই নয়, পাহাড়ে দল ভাঙানোর খেলা বন্ধ করার আবেদন করেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের কাছে। শুধু তাই নয়, অভিষেকের কাছেও এই বিষয়েও আবেদন করেন। কিন্ত্য আদৌতে যে সেই আবেদন কোনও কাজে আসল তা সেটাই ফের একবার প্রমানিত হল।

আক্রমণ শানান হামরো পার্টি সুপ্রিমো

আক্রমণ শানান হামরো পার্টি সুপ্রিমো

বলে রাখা প্রয়োজন, অজয় দল ভাঙানোর রাজনীতি নিয়ে একের পর এক কথা বলেন। তিনি বলেন, বিরোধী দল ভাঙিয়ে কণ্ঠরোধের চেষ্টা হচ্ছে। এমনকি দীর্ঘ বছর পর পাহাড়ের রাজনীতি গণতন্ত্র ফিরেছে বলেও মন্তব্য করেন অজয়। এমনকি পাহাড়ে ফের একবার একনায়কতন্ত্র শুরু হতে চলেছে বলেও আক্রমণ শানান হামরো পার্টি সুপ্রিমো।

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।