রুজিরা – মেনকাকে হয়রান করা হচ্ছে কেন? শুল্ক দফতরকে ভর্ৎসনা আদালতের

Advertisement

সোনাপাচারের তদন্তের নামে রুজিরা নারুলা ও মেনকা গম্ভীরকে দিনের পর দিন হয়রান করছে শুল্ক দফতর। শুক্রবার এমনই চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করল কলকাতা হাইকোর্ট। এদিনও মামলার শুনানিতে হাজির হননি অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল। ফলে শুনানি পিছিয়ে যায়।

ব্যাঙ্কক থেকে সোনা পাচারের মামলায় সিঙ্গল বেঞ্চের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে গিয়েছিল শুল্ক দফতর। সেই মামলা চলছে বিচারপতি হিরন্ময় ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চে। এদিন মামলার শুনানি থাকলেও হাজির হননি অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল। এর পরই বিচারপতি ভট্টাচার্য মন্তব্য করেন ২ বছর ধরে একটা ঘটনার তদন্ত চলছে? এখনো কেন তদন্ত শেষ হল না? কী করছে শুল্ক দফতর। তদন্তে নামে শুধু শুধু হয়রান করা হচ্ছে রুজিরা নারুলা ও মেনকা গম্ভীরকে।

২০১৯ সালের১৬ মার্চ রাতে ব্যাঙ্কক থেকে কলকাতাগামী বিমান থেকে অবতরণের পর দমদম নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা নারুলাকে আটক করে শুল্ক দফতর। আটক তাঁর বোন মেনকা গম্ভীরও। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয় প্রায় ২ কিলোগ্রাম সোনা। অভিযোগ ওঠে, সোনা পাচারের চেষ্টা করছিলেন তাঁরা। যদিও গভীর রাতে বিধাননগর পুলিশের তৎপরতায় ২ জনেই মুক্তি পান।

এই ঘটনায় তদন্তে স্থগিতাদেশের দাবি নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন রুজিরা ও মেনকা।

 

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।