নেপাল সীমান্তের কাছে ধৃত পাক-মার্কিনি মহিলা, উঠছে চাঞ্চল্যকর তথ্য

Advertisement

আদিত্যনাথ ঝা

বিহারের কিষাণগঞ্জে জেলা পুলিশ ও সসস্ত্র সীমা বলের হাতে গ্রেফতার হলেন এক পাক-মার্কিনী মহিলা। ফরিদা মালিক নামের ওই মহিলা বৈধ নথি ছাটড়াই সীমান্ত পার হচ্ছিলেন বলে খবর। জানা যাচ্ছে গোপনে নেপালের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন তিনি। প্রশাসনিক সূত্রের খবর, জেরার পর জানা গিয়েছে তিনি ক্যালিফোর্নিয়ার বাসিন্দা।

এদিকে,কিষাণগঞ্জ পুলিশ সুপারিন্টেডেন্ট মকবুল হক মেঙ্গনু এই গ্রেফতারির খবরটি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন,’গ্রেফতারির পর জানা গিয়েছে, ধৃত মহিলা মূলত, পাকিস্তানের। কোনও ক্রমে তিনি সেখান থেকে মার্কিনি নাগরিকত্ব পেয়ে যান। ফলে তিনি মার্কিনি ভিসা ও পাসপোর্ট নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।’ কিষাণ গঞ্জ পুলিশ তাঁক বিষে ফরেন রিজিওনাল রেজিস্ট্রেশন অফিসকে বিভিন্ন তথ্য জানান দিয়েছে। এদিকে, এই মহিলার গতিবিধি বেশ কিছুটা সন্দেহে রেখেছে সশস্ত্র সীমা বল ও প্রশাসনকে। কারণ এর আগে, এই মহিলা উত্তরাখণ্ডেও গ্রেফতার হয়েছেন। সেখানেও ভুয়ো নথি মামলায় তিনি জেল খেটেছেন।

‘আল্লাহ আমাকে আরও একটা জীবন দিলেন’, গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত ইমরান দিলেন বার্তা

পুলিশ জানাচ্ছে, উত্তরাখণ্ডে এসএসবির হাতে এই মহিলা আগে গ্রেফতার হন। সেখানে ১১ মাস জেল খেটেছেন তিনি। এরপর তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যান। এদিকে, এই সন্দেহভাজন মহিলা সম্পর্কে এই তথ্য জানতে পেরেই কলকাতায় মার্কিন কনস্যুলেটে যাবতীয় তথ্য জানায় প্রশাসন। এদিকে, কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছেও এই ফরিদা মালিক সম্পর্কে তথ্য জানানো হয়েছে বলে খবর। আপাতত কিষাণগঞ্জে পুলিশ স্টেশনে রয়েছেন এই মহিলা। তাঁর সমস্ত নথি পরীক্ষা করে দেখছে প্রশাসন ও পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, তাঁর সমস্ত নথি খতিয়ে দেখার পর তাঁর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে আইনি পথে। যদি নথি অবৈধ দেখা যায়, তাহলে আইন নেবে ব্যবস্থা, বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।