বিজেপির বিদ্রোহী ২ নেতার সঙ্গে কথা কুণালের, শুভেন্দু গড়ে দায়িত্ব নিয়েই ‘কাজ’ শুরু

Advertisement

বড় ভাঙন নামতে পারে গেরুয়া শিবিরে
Advertisement

বড় ভাঙন নামতে পারে গেরুয়া শিবিরে

বিজেপির দুই পদাধিকারীর ইস্তফরা পর তাঁদের অনুগামীও দল ছাড়ার হুমকি দিয়ে রেখেছিলেন। এদিন তাঁরা সদলবলে তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষের সঙ্গে দেখা করলেন। নন্দীগ্রামের দুই নেতা ও তাঁদের অনুগামীরা যোগ দিতে পারেন তৃণমূলে। আগামী ৪ নভেম্বর নন্দীগ্রামের গেরুয়া শিবিরে নামতে পারে বড় ভাঙন।

নন্দীগ্রামে বিজেপির প্রতি মোহভঙ্গ নেতা-কর্মীদের

নন্দীগ্রামে বিজেপির প্রতি মোহভঙ্গ নেতা-কর্মীদের

শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে নন্দীগ্রামের দুই বিক্ষুব্ধ নেতা জয়দেব দাস এবং বটকৃষ্ণ দাস ইস্তফা দেন তাঁদের দলীয় পদ থেকে। নন্দীগ্রামের গত বিধানসভা ভোটে বিজেপি কনভেনার ছিলেন বটকৃষ্ণ দাস। তিনি রাজ্য যুব মোর্চার সদস্যও। আর বিজেপির জেলা কমিটির সদস্য তথা চণ্ডীপুর মণ্ডল ২-এর ইনচার্জ জয়দেব দাস। তাঁরা শুভেন্দু তথা বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দেগে পদত্যাগ করেছেন। তাঁদের মোহভঙ্গ হয়েছে বিজেপির প্রতি।

হলদিয়ায় পা দিয়েই বিজেপির বিক্ষুব্ধদের সঙ্গে বৈঠক কুণালের

হলদিয়ায় পা দিয়েই বিজেপির বিক্ষুব্ধদের সঙ্গে বৈঠক কুণালের

এদিনই আবার কুণাল ঘোষ পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় নতুন দায়িত্ব নিয়ে গিয়েছেন। শুভেন্দু অধিকারীর মোকাবিলায় কুণাল ঘোষকে পাঠিয়েছে তৃণমূল। তাঁর দায়িত্ব সমন্বয়সাধন। আর তিনি এদিন হলদিয়ায় পা দিয়েই বিজেপির বিক্ষুব্ধ দুই নেতার সঙ্গে বৈঠক করে তাঁর কাজ শুরু করলেন। তাতে গেরুয়া শিবিরে থরহরিকম্প শুরু হতে বাধ্য।

সহযোগীর ভূমিকায় তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ

সহযোগীর ভূমিকায় তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ

তিনি বলেন, শুভেন্দু অধিকারী হলেন বিশ্বাসঘাতকতার প্রতীক। সিম্বল অফ গদ্দার। তাঁর গদ্দারির জন্যই তৃণমূলে খানিক জটিলতা তৈরি হয়েছিল। তাঁকে বিশ্বাস করে নন্দীগ্রাম-সহ পূর্ব মেদিনীপুর ছেড়ে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্ত তিনি সেই বিশ্বাসের মর্যাদারক্ষা করেননি। তাই তৃণমূল নেতৃত্বের মধ্যে একটু সমন্বয়ের অভাব ছিল। কিন্তু তৃণমূল প্রতিকূলতা সত্ত্বেও এই জেলায় দারুন কাজ করেছে, করছেও। আমাকে এই জেলায় পাঠানো হয়েছে সহযোগী করে। আমি সহযোগীর ভূমিকা পালন করব।

নন্দীগ্রামে বিজেপিতে বিদ্রোহ, শুভেন্দুর বিরুদ্ধে ক্ষোভ

নন্দীগ্রামে বিজেপিতে বিদ্রোহ, শুভেন্দুর বিরুদ্ধে ক্ষোভ

বিজেপির বিক্ষুব্ধ বটকৃষ্ণ দাস, জয়দেব দাস-রা বলেন, বারবার দিলীপ ঘোষ, সুকান্ত মজুমদার-সহ একাধিক রাজ্য নেতৃত্বকে বিষয়টি জানিয়েছি। কিন্তু তাতেও কোনও লাভ হয়নি। নন্দীগ্রামে গত বিধানসভা ভোটে শুভেন্দুকে জেতানোর পেছনে তাঁদের ভূমিকা কোনও অংশে কম ছিল না। তা উল্লেখ করে কার্যত শুভেন্দুর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন তাঁরা।

নন্দীগ্রামের বিজেপির কাছে একটা বড় ধাক্কা

নন্দীগ্রামের বিজেপির কাছে একটা বড় ধাক্কা

বিজেপির বিদ্রোহী নেতা বটকৃষ্ণ দাস, জয়দেব দাস-সহ একাধিক বিজেপি নেতা ও কর্মীরা তমলুকের নিমতৌড়িতে সাংবাদিক সন্মেলন করে বিজেপির বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন। নন্দীগ্রামের পুরনো ৫০-৬০ জন বিজেপি কর্মী হঠাৎ বেঁকে বসায় আসন্ন পঞ্চায়েত ভোটের আগে শুভেন্দু তথা নন্দীগ্রামের বিজেপির কাছে একটা বড় ধাক্কা বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

বিজেপির বিদ্রোহী নেতাদের নিরাপত্তার জন্য দরবার

বিজেপির বিদ্রোহী নেতাদের নিরাপত্তার জন্য দরবার

পদত্যাগী এই বিক্ষুব্ধ বিজেপি নেতাদের দাবি, তাঁরা ছিলেন বলেই শুভেন্দু অধিকারী জিতেছিলেন। এই মুহূর্তে শুভেন্দু অধিকারী নন্দীগ্রামে দাঁড়িয়ে জিতে দেখান? তাঁরা এদিন দল ছাড়ার পর জেলা প্রশাসনের কাছে নিরাপত্তা দাবিও করেন। তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ তাঁদের সঙ্গে বৈঠকের পর জানিয়ে দেন তাঁরাও আবেদন জানাবেন বিজেপির বিদ্রোহী নেতাদের নিরাপত্তার জন্য। উল্লেখ্য, দলত্যাগী বিজেপি নেতারা এদিন কুণাল ঘোষের সঙ্গে দেখা করেন তমলুকের নিমতৌড়ি স্মৃতিসৌধে।

নন্দীগ্রামের বিজেপি নেতাদের তৃণমূল-যোগের জল্পনা

নন্দীগ্রামের বিজেপি নেতাদের তৃণমূল-যোগের জল্পনা

উল্লেখ্য, নন্দীগ্রামের দুই বিক্ষুব্ধ নেতা জয়দেব দাস এবং বটকৃষ্ণ দাসের বাড়িতে সপ্তাহ খানেক আগে হঠাৎ হাজির হন নন্দীগ্রামের তৃণমূল নেতারা। নন্দীগ্রাম ব্লক তৃণমূলের সভাপতি বাপ্পাদিত্য গর্গ-সহ অন্যান্য নেতারা বিজেপির বিক্ষুদ্ধ নেতাদের বাড়িতে হাজির হয়ে কথা বলেন। তাঁদের সরাসরি তৃণমূলে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানান নন্দীগ্রাম ব্লকের নেতারা। এদিন তৃণমূলের ব্লক নেতারাও ছিলেন বৈঠকে।

নন্দীগ্রামে বিজেপিতে বড় ভাঙন লাগতে চলেছে

নন্দীগ্রামে বিজেপিতে বড় ভাঙন লাগতে চলেছে

নন্দীগ্রামের দুই বিক্ষুব্ধ নেতার সঙ্গে তাঁদের বড়িতে গিয়ে তৃণমূল নেতৃত্বের দেখা করার পর থেকেই নতুন জল্পনার পারদ চড়তে শুরু করেছে। বিজেপির বিক্ষুব্ধ নেতারা শীঘ্রই তৃণমূলে য়োগ দেবেন বলে জল্পনা। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা এমনও বলতে শুরু করেছেন নন্দীগ্রামে বিজেপিতে বড় ভাঙন লাগতে চলেছে। শীঘ্রই বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার হিড়িক শুরু হবে।

নন্দীগ্রামে তৃণমূলের পক্ষে রাজনৈতিক বদল আসছে!

নন্দীগ্রামে তৃণমূলের পক্ষে রাজনৈতিক বদল আসছে!

তবে কি নন্দীগ্রামে ফের রাজনৈতিক পালাবদল ঘটতে চলেছে? পঞ্চায়েত ভোটের আগে ফের উল্টো সুরে গান গাইছে নন্দীগ্রাম। নন্দীগ্রাম বিজেপিতে এই বিদ্রোহ আদৌ সুখকর নয় শুভেন্দুর পক্ষে। নন্দীগ্রামে হঠাৎ কেন তাল কেটে গেল বিজেপির? পঞ্চায়েত ভোটের আগে বিজেপিতে ভাঙন প্রবণতা নিয়ে এখন সরগরম একদা তৃণমূলের আন্দোলনভূমি নন্দীগ্রাম। ফের একবার নন্দীগ্রামে তৃণমূলের পক্ষে রাজনৈতিক বদল আসতে চলেছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Advertisement

Malek

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।